বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | ৯ আশ্বিন ১৪২৭

টকিজ

মুঘল-ই-আজমের চিত্রনাট্য গেল অস্কার লাইব্রেরিতে

ফিচার ডেস্ক

আগস্ট ৬০ বছর পার করল মুঘল--আজম। এই এপিক ছবিটি ১৯৬০ সালের আগস্ট বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছিল। বলিউডে নির্মিত শ্রেষ্ঠ ছবিগুলোর একটি হিসেবে স্মরণীয় হয়ে আছে ছবি।

ঐতিহাসিক কাহিনীনির্ভর ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন কে আসিফ। সম্রাট আকবরের চরিত্রে অভিনয় করেন পৃথ্বীরাজ কাপুর, শাহজাদা সালিমের ভূমিকায় ছিলেন দিলীপ কুমার। ছবিতে আনারকলি হয়েছিলেন মধুবালা আর মহারানী জোধা বাঈয়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন দুর্গা খোটে। সম্প্রতি মুঘল--আজম ছবির চিত্রনাট্য অস্কার লাইব্রেরিতে স্থান পেয়েছে।

বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে কে আসিফের ছেলে আকবর আসিফ জানিয়েছেন, মুঘল--আজমের যাত্রা হয়েছিল শব্দ থেকে, যেগুলো লিখেছিলেন হিন্দি সিনেমার ইতিহাসে জড়ো হওয়া সেরা চিত্রনাট্য লেখক দল। আমি মনে করি, লেখকদের সম্মান দেয়ার সেরা উপায়টা হলো তাদের লেখা চিত্রনাট্য দুনিয়ার সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ফিল্ম লাইব্রেরিতে স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ করা।


আকবর আসিফ আরো বলেন, আমার আশা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম আমার প্রয়াত পিতার তার অসাধারণ লেখক দলের কাজ থেকে শিখতে পারবে এবং অনুপ্রাণিত হবে। আমি একাডেমি অ্যাওয়ার্ডসকে চিত্রনাট্যটি গ্রহণ করার জন্য বিনয়ের সঙ্গে ধন্যবাদ দিতে চাই।

মুঘল--আজমের চিত্রনাট্য লিখেছিলেন আমান, কমল আমরোহি, ওয়াজাহাত মির্জা, এহসান রিজভি কে আসিফ।

আকবর আসিফ অবশ্য পিতার পথে যাননি। তিনি এখন ব্যবসায়ী লন্ডনে বসবাস করেন।

মুঘল--আজমের রঙিন সংস্করণ ২০০৪ সালে সিনেমা হলে মুক্তি দেয়া হয়। এর বেশ কয়েক বছর পর ২০১৬ সালে এই এপিক ছবিটিকে ভিত্তি করে লাইভ মিউজিক্যাল শো অনুষ্ঠিত হয়। শোটি ছিল দুনিয়ার সবচেয়ে বড় থিয়েটার প্রডাকশনগুলোর একটি। সব মিলিয়ে সেই ১৯৬০ সালে মুক্তির পর থেকে মুঘল--আজম আজ অবধি এপিক হয়েই রয়ে গেছে। তার আবেদন কমেনি এতটুকু।

 

সূত্র: ডিএনএ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন