শনিবার | সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭

খবর

চলমান প্রকল্পই চালিয়ে নেবেন চসিক প্রশাসক

নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম ব্যুরো

১৮০ দিন মেয়াদে বড় ধরনের কোনো প্রকল্প গ্রহণ করবে না চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) সময়ে চসিকের চলমান প্রকল্পগুলো দ্রুততম সময়ে বাস্তবায়ন করাই হবে প্রধান কাজ। তবে জরুরি প্রয়োজনে নগরবাসীর জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হতে পরে। এমনটিই জানিয়েছেন নবনিযুক্ত চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

গতকাল সকালে চট্টগ্রাম নগরীর টাইগার পাসে অস্থায়ী নগর ভবনে তিনি ১৮০ দিন মেয়াদে চসিকের প্রশাসকের দায়িত্ব বুঝে নিয়ে এসব কথা বলেন। সময় বিদায়ী সিটি মেয়র নাছির উদ্দিন তার সঙ্গে ছিলেন। পরবর্তী সময়ে নবনিযুক্ত চসিক প্রশাসক করপোরেশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণ করেন।

মতবিনিময় সভায় খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আমার দায়িত্বকালে চসিকে কোনো ধরনের দুর্নীতি মেনে নেয়া হবে না। চসিকে যে- মেয়র থাকুক, তিনি এক সময় দায়িত্ব শেষ করে চলে যাবেন, কিন্তু আপনারা কর্মকর্তারা থেকে যাবেন। তাই আমার অনুরোধ থাকবে, আপনারা দায়িত্ব মেনে সততার সঙ্গে কাজ করবেন। প্রধানমন্ত্রীর নিয়োগকৃত প্রশাসক হিসেবে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। এখান থেকে নগরবাসীর সেবায় যা প্রয়োজন সেটাই করব।

তিনি আরো বলেন, চসিকের সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে আমি ১৭ বছর তার পেছনে পেছনে ছিলাম। আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব আমি পালন করব। সদ্য সাবেক মেয়র ( নাছির) অনেক উদার মনের লোক ছিলেন। কিন্তু আমি তার মতো উদার না। যার কাছে অনিয়ম, দুই নম্বরি দেখব, সেখানে কোনো ছাড় দেয়া হবে না। সেটা আইনি পথে বা বেআইনি পথে হোক; যারা বিশ্বাসঘাতক, সাধারণ মানুষকে কষ্ট দেয় তাদের ক্ষমা করব না। দরকার হলে দায়িত্ব ছেড়ে দেব, কিন্তু আপস করব না কোনোভাবে। নগরীর যেখানে সমস্যা দেখব, সেখানেই আমি থাকব। কাজে ফাঁকি দিলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গণমাধ্যমের উদ্দেশে তিনি বলেন, নগরীর কোথায় সমস্যা আছে, কী সমস্যা আছে, আমাকে সেটা সরাসরি বলেন। আমি নিজে কাজগুলো দেখব। আমার কাজের কোনো ভুল হলে আমাকে সরাসরি বলবেন, আমি সংশোধন হয়ে কাজ করব। তবে ১৮০ দিনের মধ্যে কোনো বড় প্রকল্পের কাজ নেব না। যেগুলো চলমান সেগুলো সুন্দরভাবে সম্পন্ন করাই হবে আমার প্রধান কাজ।

সময় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামশুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন আহমদ, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম চৌধুরী, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়াসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন