শনিবার | আগস্ট ০৮, ২০২০ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

খেলা

সপ্তম পিচিচি ট্রফিই সান্ত্বনা মেসির

বণিক বার্তা ডেস্ক

স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা ধরে রাখার রেসে এবার এক ম্যাচ বাকি থাকতেই আত্মসমর্পণ করে বার্সেলোনা। ২০১৭ সালের পর আবারো শিরোপা জিতে নিয়েছে জিনেদিন জিদানের রিয়াল মাদ্রিদ। বার্সেলোনা হারলেও হারেননি লিওনেল মেসি। ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী সুপারস্টার রেকর্ড সপ্তমবারের মতো জিতে নিলেন স্প্যানিশ লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলের পুরস্কার ‘পিচিচি ট্রফি’।

রোববার আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে অ্যালাভেসকে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করে বার্সেলোনা। ম্যাচে জোড়া গোল করেন মেসি। এতে চলতি মৌসুমে তার নামের পাশে জমা হয় ২৫ গোল। মেসিকে ছুঁয়ে ফেলতে রোববার লেগানেসের বিপক্ষে চার গোল করতে হতো রিয়ালের ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমাকে। কিন্তু তিনি এদিন কোনো গোলই পাননি, আর রিয়াল ড্র করেছে ২-২ গোলে। এতে মেসির পিচিচি ট্রফি জয় নিশ্চিত হয়ে যায়। 

এ নিয়ে টানা চার মৌসুম পিচিচি জিতে নিলেন মেসি, যা ১৯৮০ সালে উগো সানচেজের পর লা লিগায় দীর্ঘতম। সানচেজও জিতেছিলেন টানা চারবার।

২০১১-১২ মৌসুমে লা লিগায় ৫০ গোল করেছিলেন মেসি। আবার গত মৌসুমেও শিরোপা জয়ের পথে তার অবদান ছিল ৩৬ গোল। সেই তুলনায় এবার করলেন মাত্র ২৫ গোল। তাও তাকে এনে দিল পিচিচি ট্রফি। ২৫ এর কম গোল করে পিচিচি জয়ের সর্বশেষ নজির আছে ২০০৬-০৭ মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের ডাচ ফরোয়ার্ড রুদ ফন নিস্টেলরুইয়ের। 

৩৩ বছর বয়সেও বার্সেলোনায় ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ মেসি। এ মৌসুমেও বার্সার ৮৬ গোলের মধ্যে ২৫টি তার, শতকরা হিসেবে ২৯ শতাংশ।

যদিও ব্যক্তিগত অর্জনকে অতটা গুরুত্ব দিতে নারাজ মেসি। বার্সেলোনার ব্যর্থতায় হতাশ এ খেলোয়াড় বলেন, ‘পুরস্কার ও ব্যক্তিগত লক্ষ্যগুলো অপ্রধান। সপ্তম পিচিচি ট্রফি জয় গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে, কিন্তু আমি চেয়েছিলাম এটি যেন লা লিগা শিরোপার সঙ্গেই আসে।’

বার্সেলোনার মাত্র ১১ জন খেলোয়াড় মৌসুমের সর্বোচ্চ গোলের পিচিচি ট্রফি জিততে পেরেছেন। মেসি ছাড়া অন্যরা হলেন-মার্টিন, সিজার রদ্রিগেজ, কায়েতানো রে, চার্লি রেক্সাচ, ক্রোঙ্কল, কুইনি, রোমারিও, রোনালদো নাজারিও, স্যামুয়েল এতো ও লুইস সুয়ারেজ। 

পরশু গোলে অ্যাসিস্ট করায়ও ইতিহাস গড়েন মেসি। এ মৌসুমে তার অ্যাসিস্ট ২১টি, যার লিগটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এর আগে ২০০৮-০৯ মৌসুমে ২০ গোলে অ্যাসিস্ট করে আগের রেকর্ডটি গড়েছিলেন মেসিরই ক্লাব সতীর্থ জাভি হার্নান্দেজ।

এদিকে রোববার রেকর্ড গড়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক সার্জিও রামোসও। লেগানেসের সঙ্গে দলের প্রথম গোলটি তারই করা, চলতি মৌসুমে যা রামোসের ১১ নম্বর গোল। লা লিগায় একবিংশ শতাব্দীতে অন্য কোনো ডিফেন্ডার তার চেয়ে বেশি গোল করতে পারেনি। ১৫ বছর আগে গেটাফের মারিয়ানো পারনিয়া করেছিলেন ১০ গোল।

বিরতির পর লা লিগায় শুরু হলে মেসির সমান ছয় গোল করে রিয়ালের শিরোপা জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন রামোস।

এদিন রিয়ালের সঙ্গে ড্র করেও অবনমিত হয়ে যায় লেগানেস। অথচ জিতলেই তারা টিকে যেত লা লিগায়।

রোববার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লেস্টার সিটিকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে টটেনহাম, বোর্নমাউথকে ২-০ গোলে হারিয়েছে সাউদাম্পটন। ইতালিয়ান সিরি-এ লিগে রোমার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে শিরোপার রেস থেকে অনেকটাই ছিটকে গেল ইন্টার মিলান, উদিনেসকে ২-১ গোলে হারায় ন্যাপোলি।

এদিকে ম্যানইউকে ৩-১ গোলে হারিয়ে এফএ কাপের ফাইনালে উঠেছে চেলসি। ১ আগস্ট ওয়েম্বলি ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ আর্সেনাল, যারা হারায় ম্যানসিটিকে।

সূত্র: মার্কা ও বিবিসি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন