বৃহস্পতিবার | আগস্ট ০৬, ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

জিও প্লাটফর্ম

৭৩০ কোটি রুপি বিনিয়োগ করবে কোয়ালকম ভেঞ্চারস

বণিক বার্তা ডেস্ক

ব্যবসায় বিলগ্নীকরণ যেন থামছেই না ভারতীয় ধনকুবের মুকেশ আম্বানির মালিকানাধীন রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের (আরআইএল) এরই মধ্যে টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান জিও ইনফোকমের বড় একটা অংশের মালিকানা বিক্রি করেছে ভারতীয় জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি। জিও প্লাটফর্মে বিনিয়োগের তালিকায় রয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জায়ান্ট ফেসবুকসহ বেশ কয়েকটি মার্কিন প্রতিষ্ঠান। এবার জিও প্লাটফর্মে ভাগ বসাচ্ছে আরেক মার্কিন প্রতিষ্ঠান কোয়ালকম ভেঞ্চারস। ভারতীয় টেলিকম জায়ান্টটির দশমিক ১৫ শতাংশ মালিকানার জন্য ৭৩০ কোটি রুপি বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে কোয়ালকম ইনকরপোরেটেডের বিনিয়োগ বিভাগ। এক যৌথ বিবৃতিতে তথ্য জানিয়েছে প্রতিষ্ঠান দুটি। খবর ইটি টেলিকম।

এর আগে ১১টি প্রতিষ্ঠান জিও প্লাটফর্মে বিনিয়োগ করেছে। বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে ফেসবুক, সিলভার লেক, ভিস্তা ইকুইটি পার্টনার, গ্লোবাল গ্রোথ ইকুইটি ফার্ম জেনারেল আটলান্টিকের মতো মার্কিন প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করেছে ফেসবুক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম জায়ান্টটি জিও প্লাটফর্মের প্রায় ১০ শতাংশ মালিকানা কিনেছে। গত এপ্রিলের অধিগ্রহণ চুক্তির মূল্য ৫৭০ কোটি ডলার, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪৩ হাজার ৫৭৪ কোটি রুপি। ফেসবুকের পরই মালিকানা কেনে আরেক মার্কিন প্রাইভেট ইকুইটি প্রতিষ্ঠান সিলভার লেক। জিও প্লাটফর্মের দশমিক ১৫ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ পেতে হাজার ৬৫৫ কোটি রুপি বিনিয়োগ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

আর সর্বশেষ ১২তম প্রতিষ্ঠান হিসেবে জিও প্লাটফর্মে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে কোয়ালকম ভেঞ্চারস। আর সেটি হলে দুই মাসেরও কম সময়ের মধ্যে এসব বিনিয়োগের মধ্য দিয়ে জিও প্লাটফর্মের মোট ২৫ দশমিক ২৪ শতাংশ মালিকানায় ভাগ বসাবে ১২টি প্রতিষ্ঠান। থেকে আরআইএলের সম্মিলিত আয় দাঁড়াবে লাখ ১৮ হাজার ৩১৮ কোটি ৪৫ লাখ রুপি।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কোয়ালকম ভেঞ্চারসের বিনিয়োগ এখনো চূড়ান্ত নয়। কারণ বিনিয়োগের জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবং আনুষঙ্গিক খাতের অনুমোদনের প্রয়োজন হবে। এটি চূড়ান্ত হলে জিও প্লাটফর্মের ইকুইটি ভ্যালু হবে লাখ ৯১ হাজার কোটি রুপি এন্টারপ্রাইজ ভ্যালু হবে লাখ ১৬ হাজার কোটি রুপি।

প্রায় ৪০ কোটি সাবস্ক্রাইবার নিয়ে ভারতের শীর্ষ টেলিকম প্রতিষ্ঠানের জায়গা দখলে নিয়েছে আরআইএলের মালিকানাধীন জিও প্লাটফর্ম। নতুন বিনিয়োগের বিষয়ে আরআইএলের চেয়ারম্যান ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মুকেশ আম্বানি বলেন, কোয়ালকম দীর্ঘদিন ধরে মূল্যবান অংশীদার হিসেবে কাজ করছে। নিরাপদ তারবিহীন ডিজিটাল নেটওয়ার্ক স্থাপনার বিষয়টি আরো শক্তিশালী করার জন্য আমরা লক্ষ্য স্থির করেছি। যার ফলে ডিজিটাল কানেক্টিভিটির মধ্য দিয়ে ভারতের প্রত্যেকেই যেন উপকৃত হতে পারে।

কোয়ালকমের বিষয়ে উল্লেখ করতে গিয়ে ভারতীয় ধনকুবের বলেন, তারবিহীন প্রযুক্তির ক্ষেত্রে কোয়ালকম বৈশ্বিক জায়ান্ট। যে কারণে প্রযুক্তি ক্ষেত্রে তাদের জানাশোনা, বিচক্ষণতা আমাদের ফাইভজি প্রযুক্তি চালু করতে সহযোগিতা করবে। যার মধ্য দিয়ে ভারতের সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে উদ্যোক্তা পর্যায়ে সবাই ডিজিটাল রূপান্তরের সুযোগ ভোগ করতে সক্ষম হবেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন