বৃহস্পতিবার | আগস্ট ০৬, ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

পণ্যবাজার

৫৭ বছরের সর্বনিম্নে নামতে পারে যুক্তরাষ্ট্রের কয়লা উত্তোলন

বণিক বার্তা ডেস্ক

বৈশ্বিক কয়লা খাতে নভেল করোনাভাইরাসের প্রভাব তো রয়েছে, এর আগে থেকেই রয়েছে পরিবেশ দূষণ নিয়ে দায়বদ্ধতা। দুইয়ের মিশেলে চলতি বছর খাতটি বড় ধরনের চ্যালেঞ্জে পড়তে পারে। ধারাবাহিকতায় বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ কয়লা উত্তোলনকারী দেশ যুক্তরাষ্ট্রে পণ্যটির উত্তোলন ব্যাপক হারে হ্রাস পেতে পারে বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা। ইউএস এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (ইআইএ) এক সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের কয়লা উত্তোলন কমে গত ৫৭ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে যেতে পারে। খবর এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটস।

ইআইএর সর্বশেষ প্রাক্কলন অনুযায়ী, ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ৫০ কোটি ১৩ লাখ শর্ট টন কয়লা উত্তোলন হতে পারে। আগের মাসের প্রাক্কলনের তুলনায় প্রতিষ্ঠানটি পণ্যটির উত্তোলন পূর্বাভাস কমিয়েছে কোটি ৮৭ লাখ শর্ট টন বা দশমিক শতাংশ। একই সঙ্গে নভেল করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের আগের ধারণার তুলনায় পণ্যটির উত্তোলন পূর্বাভাস কমানো হয়েছে কোটি ৫৩ লাখ শর্ট টন। এছাড়া ২০১৯ সালের তুলনায় এবার দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন কমতে পারে ২৮ দশমিক শতাংশ। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে মোট ৭০ কোটি ৫৩ লাখ শর্ট টন কয়লা উত্তোলন করা হয়েছিল।

ইআইএর জুলাইয়ের শর্ট টার্ম এনার্জি আউটলুকের পূর্বাভাস সত্যি হলে তা হবে ১৯৯৩ সালের পর দেশটির সর্বনিম্ন বার্ষিক কয়লা উত্তোলনের রেকর্ড। ওই সময় দেশটি মাত্র ৪৭ কোটি ৭২ লাখ শর্ট টন কয়লা উত্তোলন করেছিল। এদিকে বছর তো বটেই, আগামী বছরও দেশটিতে পণ্যটির উত্তোলন ২০১৯ সালের সবপর্যায়ে পৌঁছানোর সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। ২০২১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানিটির উত্তোলন চলতি বছরের তুলনায় সামান্য বেড়ে ৫৩ কোটি ৫৯ লাখ শর্ট টন ছুঁতে পারে।

নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সর্বোচ্চ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র অন্যতম। অন্যান্য খাতের মতো ভাইরাসটির প্রভাব দেশটির খনিজ খাতেও পড়েছে। প্রায় সব ধরনের খনিজ কার্যক্রমের গতি শ্লথ হয়ে পড়েছে। বাদ যায়নি কয়লাও। এছাড়া পরিবেশ ইস্যুতে দেশটি কয়লার পরিবর্তে অপেক্ষাকৃত ক্লিন এনার্জি যেমন প্রাকৃতিক গ্যাস নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যবহার বাড়ানোর ওপর জোরারোপ করেছে। বিশেষত বিদ্যুৎ উত্পন্ন খাতে কয়লার ব্যবহার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। চলতি বছরের ধারা অব্যাহত থাকতে পারে।

ইআইএর প্রাক্কলন অনুযায়ী, ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্যুৎ উত্পন্ন খাতে জ্বালানিটির ব্যবহার দাঁড়াতে পারে ৩৭ কোটি ৬৯ লাখ শর্ট টন। আগামী বছর চলতি বছরের তুলনায় কিছুটা বেড়ে দেশটির বিদ্যুৎ উত্পন্ন খাতে পণ্যটির ব্যবহার ৪৬ কোটি ২০ লাখ টনে দাঁড়াতে পারে। ২০১৯ সালে যেখানে খাতটিতে কয়লা ব্যবহারের পরিমাণ ছিল ৫৩ কোটি ৯৪ লাখ শর্ট টন। এদিকে বিদ্যুৎ উত্পন্ন খাতসহ চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের সম্মিলিত কয়লার ব্যবহার দাঁড়াতে পারে ৪২ কোটি ৩২ লাখ শর্ট টন, গত বছর যা ছিল ৫৮ কোটি ৭৩ লাখ টন।

তবে আগামী বছর দেশটিতে কয়লার ব্যবহার তুলনামূলক বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে ইআইএ। এর পেছনে মূল প্রভাবক হিসেবে কাজ করবে প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি। প্রাকৃতিক গ্যাসের তুলনায় কয়লা সাশ্রয়ী হওয়ায় আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রে পণ্যটির ব্যবহার বেড়ে পুনরায় ৫০ কোটি শর্ট টন ছাড়ানোর পূর্বাভাস দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

যা- হোক চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের মোট উৎপাদিত বিদ্যুতে কয়লার হিস্যা দাঁড়াতে পারে ১৭ দশমিক শতাংশ, গত বছর যার পরিমাণ ছিল ২৪ দশমিক শতাংশ। গত এক দশকের মধ্যে দেশটির বিদ্যুৎ খাতে কয়লার ব্যবহার অর্ধেকের বেশি কমেছে। ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার হিস্যা ছিল ৪৪ দশমিক শতাংশ।

মূলত উত্তোলন ব্যাপক হারে কমায় বছর দেশটি থেকে পণ্যটির রফতানিতেও নিম্নমুখী প্রবণতা পড়তে পারে। ইআইএর তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে মোট কোটি ৩১ লাখ শর্ট টন কয়লা রফতানি হতে পারে। আগামী বছর তা সামান্য বেড়ে কোটি ৭১ লাখ টনে উন্নীত হতে পারে। অথচ ২০১৯ সালে দেশটি সব মিলিয়ে কোটি ২৯ লাখ শর্ট টন কয়লা আন্তর্জাতিক বাজারে রফতানি করেছিল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন