বৃহস্পতিবার | আগস্ট ০৬, ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

খবর

যশোর ও বগুড়ায় দুই আসনে উপ-নির্বাচন কাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনে উপ-নির্বাচন আগামীকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হবে। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও নির্বাচন কমিশনকে এ আসন দুটির উপনির্বাচন করতে হচ্ছে। নির্বাচন উপলক্ষে কমিশনের পক্ষ থেকে সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যালটে নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এদিন সকাল ৯টা থেকে একটানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকায় ইতোমধ্যে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। 

নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি বিষয়ে কমিশনের যুগ্মসচিব (জনসংযোগ) এসএম আশাদুজ্জামান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে এবং আনন্দমুখর পরিবেশে ভোটপ্রদান করতে পারেন সেজন্য যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। নির্বাচনী স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোটাদের ভোট প্রদান এবং নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে দায়িত্ব পালনের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ আসন দুটির উপনির্বাচন সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানের জন্য নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

করোনা পরিস্থিতির কারণে উপ নির্বাচন পিছিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছে বিএনপি। ভোটের তারিখ না পেছালে নির্বাচন বর্জনেরও ঘোষণা দিয়েছে দলটি। অপরদিকে ১৪ জুলাই সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী হাওয়ায় এদিনটির পরিবর্তে যে কোন দিন ভোট গ্রহণের অনুরোধ জানিয়েছে। তবে নির্বাচন কমিশন বলেছে নির্বাচন পেছানোর কোনো সুযোগ তাদের নেই।

নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকায় আজ সোমবার (১৩ জুলাই) দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ১৪ জুলাই দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় বেবিট্যাক্সি/অটোরিকশা, ইজিবাইক ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, কার, বাস-ট্রাক ও টেম্পো চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এছাড়া গতকাল ১২ জুলাই দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ১৫ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত সকল ধরনের মোটরসাইকেল চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

যশোর-৬ আসনে আওয়ামী লীগ বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৪ হাজার ৩৯৭ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৭৯টি ভোট কক্ষ ৩৭৪ টি।

বগুড়া-১ আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি জাতীয় পার্টি, খিলাফত আন্দোলন, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টি ও একজন স্বতন্ত্র সহ মোট ৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অংশগ্রহণ করছেন। এ আসনের মোট ভোটার তিন লাখ ৩০ হাজার ৯১৮ জন মোট ভোট কেন্দ্র ১২৩ এবং ভোট কক্ষ ৭১০টি।

এ আসন দুটিতে গত ২৯ মার্চ উপ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে শেষ সময় তা স্থগিত করা হয়। এখন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থেকে এ নির্বাচন করছে ইসি। ১৫ জুলাই বগুড়া-১ আসনের এবং ১৮ জুলাই যশোর-৬ আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সংবিধান নির্ধারিত ১৮০ দিন শেষ হতে যাচ্ছে।

সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের ৪ দফায় বলা হয়েছে- ‘সংসদ ভাঙ্গিয়া যাওয়া ব্যতীত অন্য কোনো কারণে সংসদের কোনো সদস্যপদ শূন্য হইলে পদটি শূন্য হইবার নব্বই দিনের মধ্যে উক্ত শূন্যপদ পূর্ণ করিবার জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে। তবে শর্ত থাকে যে, যদি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের মতে, কোন দৈব-দুর্বিপাকের কারণে এই দফার নির্ধারিত মেয়াদের মধ্যে উক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব না হয়, তাহা হইলে উক্ত মেয়াদের শেষ দিনের পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে উক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে।’

যশোর-৬ আসনে সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা ইসমাত আরা সাদেক এর মৃত্যুতে গত ২১ জানুয়ারি এ আসনটি এবং একই দলের আব্দুল মান্নান এর মৃত্যুতে গত ১৮ জানুয়ারি বগুড়া-১ আসন শূন্য হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন