শুক্রবার | আগস্ট ০৭, ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

বেসিস জাপান ডেস্কের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) উদ্যোগে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে বেসিস জাপান ডেস্কের প্রথম অনলাইন মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক জোন অথরিটির যুগ্ম সচিব হাসান আরিফ, কাইকম গ্রুপের ফাউন্ডার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং জেট্রো বাংলাদেশ কো-অর্ডিনেটর অঞ্জন দাস এবং ডেসটিনি ইনের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা বাংলাদেশী আইটি প্রফেশনাল ইন জাপানের কো-অর্ডিনেটর রেজওনুর কবির রাজিন।

অনুষ্ঠানে হাসান আরিফ স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদান পুনর্গঠনে জাপানের অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করেন। উভয় দেশের পারস্পরিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক সুদৃঢ় করতে এবং তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সমপ্রসারণে বেসিস জাপান ডেস্কের উদ্যোগকে তিনি স্বাগত জানান।

তিনি বলেন, জাপানের বাজারে আমাদের ব্যবসা প্রসারের জাপানি ভাষা ভালোভাবে রপ্ত করা প্রয়োজন। জাপানে ব্যবসা করার উপায় এবং চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া জাপানিদের সঙ্গে কিভাবে ব্যবহার করলে তারা খুশি হন সে ব্যাপারে আলোকপাত করেন।

জেট্রো বাংলাদেশের কো-অর্ডিনেটর অঞ্জন দাস বলেন, বেসিস জাপানের বাজারে বাংলাদেশি আইটি কোম্পানিগুলোর অবস্থান আস্থা তৈরিতে গত কয়েক বছর ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি বেসিস জাপান ডেস্কের উদ্যোগকে স্বাগত জানান। আশা প্রকাশ করেন, ডেস্ক বেসিস সদস্যদের জাপানে ব্যবসা সম্প্রসারণ এবং জাপানি উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে অফশোর ডেভেলপমেন্ট সেন্টার স্থাপনে উৎসাহিত করবে।

রেজওনুর কবির রাজিন বলেন, বেসিস সদস্যরা কীভাবে জাপানে ব্যবসা করবেন সে বিষয়ে অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন এবং বলেন বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে জাপানে বাংলাদেশের আইটি শিল্পের রফতানি বাড়িয়ে তুলতে ডেস্ক উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

জাপানের আইটি উদ্যোক্তাদের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক উন্নয়নে বেসিস কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রমের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, বেসিস জাপানের বাজারে বাংলাদেশী আইটি কোম্পানিগুলোর অবস্থান আস্থা তৈরিতে গত কয়েক বছর ধরে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, এরই মধ্যে ৭৮টি বেসিস সদস্য প্রতিষ্ঠান জাপান ডেস্কে মাসিক ফি প্রদানের মাধ্যমে তালিকাভুক্ত হয়েছে এবং সংখ্যা আরো বাড়বে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, আমরা আশাবাদী যে জাপানের বাজারকে কেন্দ্র করে স্থাপিত জাপান ডেস্ক সফল ব্যবসায়িক চুক্তি তৈরি করতে, বিটুবি ম্যাচমেকিং করতে, সম্ভাব্য জাপানি আইসিটি সংস্থাগুলোর সঙ্গে পরিচিতি স্থাপনে, জাপানের বাজার নিয়ে অবিচ্ছিন্ন গবেষণা করা, জাপানভিত্তিক আইটি ইভেন্টগুলোতে অংশ নেয়া ইত্যাদি কার্যক্রমের মাধ্যমে জাপানে বাংলাদেশের আইটি শিল্পের রফতানি বাড়িয়ে তুলতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। বেসিস জাপান ডেস্ক বেসিস সদস্যদের জাপানে ব্যবসা সম্প্রসারণে যথাসাধ্য চেষ্টা করবে এবং সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবে বলে তিনি সবাইকে আশ্বস্ত করেন।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন