বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

করোনা রুখতে অ্যালকোহল নিষিদ্ধ!

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে নতুন কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার, এর মধ্যে অন্যতম অ্যালকোহলের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ।

রাতে জনসাধারণের চলাচলের ওপর কারিফউ জারি করেছে প্রশাসন। আর ঘরের বাইরে গেলেই মুখে মাস্ক পরাও বাধ্যতামূলক। 

প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা বলেছেন, চলতি বছর দ্বিতীয় মেয়াদে অ্যালকোহলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে তারা জাতীয় স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর চাপ কমিয়ে আনতে চান। 

দক্ষিণ আফ্রিকায় মোট সংক্রমণ যখন আড়াই লাখ ছাড়িয়ে গেছে তখন এমন কঠোর ব্যবস্থা নিল সরকার। দেশটিতে মৃত্যুও ৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। সরকারের পূর্বাভাস বলছে, চলতি বছর শেষে মৃত্যু ৫০ হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে।

আফ্রিকা মহাদেশে কভিড-১৯ সবচেয়ে বেশি আঘাত হেনেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। এ সপ্তাহেই দেশটি একদিনে রেকর্ড সংক্রমণ দেখেছে। দেশটির মধ্যে আবার সংক্রমণের কেন্দ্রস্থলে পরিণত হয়েছে গাউটেং প্রদেশ। 

রামাফোসা বলেন, তার দেশের বেশিরভাগ মানুষই ভাইরাসটির বিস্তার রোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন, যদিও এখনো কিছু মানুষ রয়েছেন যারা একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন কিংবা একে অপরকে রক্ষার দায়িত্বটুকু পালন করছেন না।  

জনগনের উদ্দেশে দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘কিছু মানুষ এখনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করছেন, দেদার মদ্যপান করছেন এবং মাস্ক না পরেই ভিড়ের মধ্যে চলাফেরা করছেন।’

রামাফোসা জানান, নতুন পদক্ষেপ তার দেশে হয়তো করোনাভাইরাসের ঝড় কিছুটা প্রশমিত করতে সাহায্য করবে। এছাড়া জরুরি অবস্থা ১৫ আগস্ট পর্যন্ত বলবৎ থাকবে বলেও জানান দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট। রাত ৯টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের চলাচল নিষিদ্ধ থাকবে।

কভিড-১৯ রোগীদের জন্য ২৮ হাজার বেডের হাসপাতাল প্রস্তুত রেখেছে সরকার। যদিও ডাক্তার, নার্স ও ফিজিওফেরাপিস্ট মিলে ১২ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীর ঘাটতি রয়েছে বলে মনে করেন রামাফোসা।

অ্যালকোহলের ওপর তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার এক সপ্তাহ পর আবার নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হলো। মদ খেয়ে মারামারিতে লিপ্ত হওয়া, সহিংসতায় জড়িয়ে পড়া ও সপ্তাহ শেষের ছুটির দিন আমোদফ‚র্তির আয়োজন করা কমিয়ে আনতেই অ্যালকোহলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিল সরকার। চিকিৎসক ও পুলিশ বলছে, আগের নিষেধাজ্ঞা বেশ কার্যকর হয়েছে এবং এ সময় হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যাও বেশ কমে আসে। যদিও দেশের মদ তৈরিকারক ও বিপণন কোম্পানিগুলো জানাচ্ছে, এই নিষেধাজ্ঞার ফলে তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নিতে হবে। 

সূত্র: বিবিসি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন