শুক্রবার | আগস্ট ০৭, ২০২০ | ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

দেশের খবর

পুলিশের ভয়ে যমুনায় ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ নারী

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে পুলিশের ভয়ে বাড়ির পাশে যমুনা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন এক নারী। তবে পুলিশ বলছে, একটি গুম মামলার বাদী ওই নারী। তার কাছে তথ্য নেয়ার জন্য জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তিনি আকস্মিকভাবে নদীতে ঝাঁপ দেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ঘটনা এটি। এখনো তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

মাজেদা বেগম (৫৫) নামে ওই নারীর বাড়ি উল্লাপাড়া উপজেলার বালশা বাড়ি ইসলামপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের হাচেন মোল্লার স্ত্রী।

নিখোঁজ মাজেদার পুত্রবধূ সালমা বেগম জানান, বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টায় পুলিশ তাদের কৈজুরীর ভাড়া বাড়ি থেকে তার শ্বশুর ও শাশুড়িকে ধরে নিয়ে যায়। এরপর কী হয়েছে তা তারা আর জানতে পারেননি।

তিনি বলেন, লোক মুখে শুনতে পেরেছি, পুলিশের ভয়ে আমার শাশুড়ি যমুনায় ঝাঁপ দেয়ার পর তাকে আর  খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 

শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  আতাউর রহমানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, মাজেদা বেগমের চতুর্থ ছেলে শাহীন। শাহীনকে গুম করা হয়েছে, এই অভিযোগ এনে উল্লাপাড়া থানায় একটি মামলা করেন মাজেদা বেগম নিজেই। এরপর পরিবার পরিজন নিয়ে হাচেন মোল্লা স্ত্রী মাজেদাসহ শাহজাদপুর উপজেলার কৈজুরী বাজারের পাশে প্রায় চার মাস ধরে বসবাস করছেন। গুম হয়ে যাওয়া শাহীনকে সেখানে অনেকেই দেখতে পায়। এমন তথ্য পেয়ে শাহজাদপুর থানা ও উল্লাপাড়া থানার পুলিশ ফোর্স নিয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে কৈজুরীতে গেলে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে মাজেদা বাড়ির পাশেই যমুনা নদীতে ঝাঁপ দেন। তখন থেকেই তিনি নিখোঁজ। তবে মাজেদার স্বামী হাচেন মোল্লা পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন।

এদিকে উল্লাপাড়া থানার ওসি দীপক কুমার দাস বলছেন, মাজেদা বেগমের ছেলে শাহীন মাদক কারবারি। অন্যকে ফাঁসাতে উল্লাপাড়া থানায় একটি মিথ্যা গুমের মামলা করেন মাজেদা। এরপর থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে শাহজাদপুরে চলে যান। বৃহস্পতিবার রাতে শাহজাদপুর থানার পুলিশের সহায়তা নিয়ে উল্লাপাড়া থানা পুলিশ মাজেদার শাহজাদপুরের কৈজুরীর ভাড়া বাড়িতে গেলে মাজেদা পুলিশের ভয়ে যমুনা নদীতে ঝাঁপ দেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন