শনিবার | আগস্ট ১৫, ২০২০ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭

করোনা

গ্রীষ্মে কভিডের বিপদ বাড়াতে পারে পোকার কামড়

বণিক বার্তা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রামক টিকজনিত (রক্তচোষা পরজীবী পোকা) রোগগুলো মানুষ অন্যান্য প্রাণীকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। সংশ্লিষ্ট পোকার কামড়ের মাধ্যমে মানুষ আক্রান্ত হয়। গ্রীষ্মকালীন মৌসুমে যুক্তরাষ্ট্রে এই পোকাদের আক্রমণ বড় একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। আর চলমান কভিড-১৯ মহামারীর মধ্যে টিকজনিত রোগগুলো পরিস্থিতি আরো খারাপ করে দিতে পারে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। টিকজনিত রোগ কভিড-১৯এই দুই ধরনের রোগের লক্ষণ একই রকমের হওয়ায় রোগ চিহ্নিত করাও কঠিন হয়ে যাবে।

তিন মাসের অধিক সময় ধরে লকডাউন, বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন, সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন থাকার পর প্রকৃতিপ্রেমীরা সতেজ বাতাসের সন্ধানে প্রকৃতিতে ঘুরে বেড়ানোর পরিকল্পনা করছেন। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাভেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক এবং লাইম ডিজিজ রিসার্চ গ্রুপের ডিরেক্টর ইভা সাপি টিকজনিত রোগকে একটি নিখুঁত ঝড় হিসেবে অভিহিত করে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, টিকের জন্য এটা খুব খারাপ বছর।

নিউইয়র্ক-প্রিসবিটারিয়ান কুইন্স হেলথ কেয়ার সিস্টেমের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সোরানা সেগাল-মুরার বলেন, আমরা দেখেছি টিকজনিত অসুস্থতায় সৃষ্ট জ্বর, মাংসপেশিতে ব্যথা, মাথাব্যথা, তীব্র অবসন্নতার মতো লক্ষণগুলোর সঙ্গে কভিড-১৯ ভাইরাসের লক্ষণের অনেক মিল রয়েছে। কেবল করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে শ্বাসকষ্টের সমস্যা টিকজনিত আক্রান্তদের থেকে আলাদা করতে পারে।

তাই কভিড-১৯ থেকে বাঁচতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার সঙ্গে পোকামাকড়ের কামড় এড়াতে পরামর্শগুলোও মেনে চলা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

সিএনএন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন

×