বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

অনলাইনে মুদি পণ্য ক্রয়ে অভ্যস্ত হচ্ছে জাপানিরা

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে অনলাইন মুদি দোকানে অভ্যস্ত হতে বাধ্য হয়েছেন জাপানের ক্রেতারা এতে এওন কোম্পানির মতো রিটেইলারদের ডেলিভারি চাহিদা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে খবর রয়টার্স 

মহামারীর পরিপ্রেক্ষিতে শুধু যে জাপানিরাই অনলাইনে অভ্যস্ত হয়েছে তা নয় বিশ্বের সব প্রান্তেই অনলাইনে সব ধরনের পণ্য ডেলিভারি বৃদ্ধি পেয়েছে তবে দোকানে সুন্দরভাবে উপস্থাপিত করে রাখা সতেজ শাকসবজি, ফলমূল মাছের মতো মুদি পণ্য সংগ্রহ করার বাতিক রয়েছে জাপানিদের মধ্যে এজন্য অনলাইনে খাদ্যসামগ্রী ক্রয়ে অভ্যন্ত হতে জাপানিদের আরো কয়েক বছর লাগার কথা ছিল 

জাপানের রিটেইল জায়ান্ট এওনের জন্য একটি গ্রোসারি -কমার্স ব্যবসা চালুতে ডেকে আনা ওকাডো গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক লিউক জেনসেন বলেন, আমি মনে করি, মহামারীটি গ্রোসারি -কমার্স গ্রহণের মোক্ষম উপলক্ষ তৈরি করে দিয়েছে 

বেশির ভাগ কোম্পানিই তাদের বিক্রির উপাত্ত প্রকাশ করছে না তবে রিটেইল নির্বাহী বিশ্লেষকরা মনে করছেন, জাপানের মুদি পণ্য বিক্রির শতাংশই সম্পন্ন হচ্ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে মহামারী শুরুর আগে যে হার ছিল মাত্র দশমিক শতাংশ মহামারী-পূর্ব সময়ে চীনে যেখানে ১৫ শতাংশ এবং ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট দুর্বলতা সত্ত্বেও ব্রিটেনে শতাংশ মানুষ অনলাইনে মুদি পণ্য কিনত, তার তুলনায় জাপানে মাত্র শতাংশ মানুষের অনলাইনে কেনাকাটা তুলনামূলকভাবে খুব ছোট উপাত্ত তবে জাপানিরা যে বাজারে গিয়ে স্বচক্ষে দেখে মুদি পণ্য ক্রয়ে আগ্রহী, তাতে বড় ধাক্কা দিতে সক্ষম হয়েছে মহামারী

টোকিওর পশ্চিম শহরতলিতে বসবাস করা ইউরি ওহতাকা নামে এক গ্রাফিক ডিজাইনার গত মার্চ থেকেই বিভিন্ন অনলাইন সুপারমার্কেট থেকে পণ্য ক্রয় করেছেন নিকটস্থ দোকানগুলোর শূন্য শেলফ দেখে তিনি মাধ্যমে কেনাকাটা শুরু করেন তিনি যেহেতু ঘরে বসে কাজ করেন, সেজন্য অনলাইন ডেলিভারি তার জন্য সুবিধা হিসেবে দেখা দিয়েছে সংক্রমণের আশঙ্কার মধ্যে সরাসরি দোকানে যাওয়া এড়াতে পেরে তিনি খুশি

ওহতাকা বলেন, এখন মুখোমুখি দেখা করতে হচ্ছে না, কোনো লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে না বা কোনো নিবন্ধনের প্রয়োজন পড়ছে না তিনি তার বয়স্ক মা-বাবাকেও যে অনলাইনে কেনাকাটা করতে উদ্বুদ্ধ করেছেন, তাও জানান তারা আগে প্রতিদিন সুপারমার্কেটে গিয়ে কেনাকাটা করতেন আমি চাই না, তারা এই ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করুন

বিশ্লেষকরা বলছেন, যেহেতু অনেক গৃহস্থালিতে দুই ব্যক্তি ঘরে বসে কাজ করছেন, সেজন্য তারা কেনাকাটায় কম সময় ব্যয় করতে চাইছেন

ক্রেতাদের আচরণে পরিবর্তন বাজারের জন্য ইতিবাচক হিসেবে দেখা হচ্ছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ মুদি বাজার জাপানে প্রতি বছর ৫০ ট্রিলিয়ন ইয়েনের চেয়েও বেশি পণ্য বিক্রি হচ্ছে

অনলাইন সেবা নিয়ে কয়েক বছর ধরে আলোচনা চললেও -কমার্স অবকাঠামোয় কেবল অতিসম্প্রতি বিনিয়োগ শুরু করেছে প্রধান জাপানি সুপারমার্কেটগুলো অনলাইন মাধ্যমে ব্যাপক গ্রাহক চাহিদা পূরণে হিমশিম খাচ্ছে তারা টুইটারে অনেক ক্রেতা অভিযোগ করছেন যে কীভাবে তারা তাদের পণ্যের ক্রয়াদেশ নিশ্চিতে হিমশিম খাচ্ছেন   

গত নভেম্বরে অনলাইন প্লাটফর্ম শক্তিশালী করতে যুক্তরাজ্যে অনলাইন গ্রোসারির পথিকৃৎ ওকাডোর সহায়তা গ্রহণ করে এওন বৃহৎ প্রতিপক্ষ আমাজন, সেভেন অ্যান্ড আই হোল্ডিংস, ওয়ালমার্ট মালিকানাধীন সেইয়ু এবং -কমার্স জায়ান্ট রাকুতেনের সঙ্গে টেক্কা দেয়া জাপানের সুপারমার্কেট জায়ান্টের জন্য জরুরি হয়ে পড়েছিল কিন্তু পূর্ণ কারিগরি সক্ষমতায় পৌঁছতে এওনের ২০২৩ সাল লেগে যাবে নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর ফলে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে অনলাইনে মুদি পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধিতে সাম্প্রতিক সময়ে অনলাইন অর্ডার প্যাকেটজাত করার জন্য নতুন কর্মী নিয়োগ বাড়িয়েছে পণ্য ক্রেতাদের ঘরে পৌঁছে দিতে চালকস্বল্পতায় ভুগছে এওন

কোম্পানিটির শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, রকম প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও এওন আশা করছে অনলাইনে তাদের মুদি পণ্যের বিক্রি ৫০ শতাংশ বাড়তে পারে এবং আগামী ফেব্রুয়ারিতে শেষ হওয়া চলতি অর্থবছরে তাদের মোট বিক্রির ১০ শতাংশ বিক্রি হবে অনলাইন প্লাটফর্মে

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন