বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

ভারতে ফাইভজি ট্রায়াল

হুয়াওয়ে ও জিটিইর অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তা

বণিক বার্তা ডেস্ক

সীমান্ত উত্তেজনার জেরে ভারতে চীনা পণ্য বর্জনের ডাক ক্রমান্বয়ে জটিল হচ্ছে পরিস্থিতিতে দেশটিতে ফাইভজি ট্রায়ালে অংশ নেয়া থেকে বাদ পড়তে পারে হুয়াওয়ে জিটিই ভারতের টেলিকম বিভাগ একটি কমিটি গঠনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে, যা দেশটিতে ফাইভজি ট্রায়ালে হুয়াওয়ে জিটিইর অংশগ্রহণের খুঁটিনাটি পর্যালোচনা করে দেখবে শুধু দুই চীনা নেটওয়ার্ক সরঞ্জাম নির্মাতাই নয়; ভারত সরকার চীনভিত্তিক অন্যান্য সরঞ্জাম নির্মাতাদের ফাইভজি ট্রায়ালে অংশগ্রহণের বিষয় পর্যালোচনা করে দেখতে চায়, যা টেলিযোগাযোগ খাতের বৃহত্তম বাজারটিতে ফাইভজি ট্রায়ালে চীনা প্রতিষ্ঠানগুলোর অংশগ্রহণ অনিশ্চয়তার মুখে ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে খবর ইকোনমিক টাইমস

ভারতে চলতি বছরের শুরুর দিকে প্রথম ফাইভজি ট্রায়াল অনুষ্ঠিত হুওয়ার কথা ছিল কিন্তু সেবার মূল্য নির্ধারণ এবং ট্রায়ালের মেয়াদ কতদিন দীর্ঘস্থায়ী হবে, তা নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছাতে না পারায় তা আটকে যায়

ভারত সরকার গত বছর ডিসেম্বরে নিজেদের ফাইভজি ট্রায়ালে চীনা নেটওয়ার্ক সরঞ্জাম নির্মাতা হুয়াওয়ে জিটিইকে অংশগ্রহণের অনুমোদন দিয়েছিল ওই সময় যুক্তরাষ্ট্র এর কয়েকটি মিত্র দেশের চাপে হুয়াওয়ের ফাইভজি প্রযুক্তি নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও ভারত সরকার প্রতিষ্ঠানটিকে ফাইভজি ট্রায়ালে অংশগ্রহণের অনুমতি দিয়েছিল, যা ছিল হুয়াওয়ের জন্য ইতিবাচক

ওই ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, হুয়াওয়ে বিশ্বের বৃহৎ টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক সরঞ্জাম এবং দ্বিতীয় বৃহৎ স্মার্টফোন নির্মাতাই নয়; পঞ্চম প্রজন্মের আল্ট্রা-হাই-স্পিড মোবাইল নেটওয়ার্ক ফাইভজি অবকাঠামো নির্মাণ প্রযুক্তি উন্নয়নেও নেতৃত্ব দিচ্ছে ফাইভজি অবকাঠামো নির্মাণ বাণিজ্যিক ব্যবহারের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অনেক এগিয়ে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি

ইটি টেলিকমের গত সপ্তাহে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারতের টেলিকম বিভাগ রাষ্ট্রীয় একাধিক টেলিকম কোম্পানিতে হুয়াওয়ে জিটিইর নেটওয়ার্ক গিয়ার ব্যবহার নিষিদ্ধ করার বিষয়ে ভাবছে একই সঙ্গে ব্যক্তি খাতের বৃহৎ দুই টেলিকম কোম্পানি ভারতী এয়ারটেল ভোডাফোন আইডিয়া লিমিটেডকে প্রতিষ্ঠান দুটির নেটওয়ার্ক গিয়ার বর্জনে বাধ্য করা হতে পারে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়

ভারত সরকারের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সীমান্ত উত্তেজনার জেরে হুয়াওয়ে জিটিইকে নিষিদ্ধের মাধ্যমে চীনের বিরুদ্ধে প্রথম বড় ধরনের কোনো অর্থনৈতিক পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ভারত সরকার শুধু তা- নয়; চীনের সঙ্গে সীমান্ত উত্তেজনার প্রভাব পড়তে যাচ্ছে ভারতের ফোরজি নেটওয়ার্ক সেবা খাতে রাষ্ট্রীয় টেলিকম কোম্পানি ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড (বিএসএনএল) এবং মহানগর টেলিফোন নিগম লিমিটেডের (এমটিএনএল) সঙ্গে ফোরজি উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট নেটওয়ার্ক সরঞ্জাম সরবরাহের চুক্তি রয়েছে চীনা দুই প্রতিষ্ঠানের, যা বাতিল করা হতে পারে বাস্তবে এমন হলে ভারতীয় টেলিকম কোম্পানিগুলোর জন্য ফোরজি উন্নয়ন বিস্তারে কোনো ধরনের নেটওয়ার্ক সরঞ্জাম সরবরাহ করতে পারবে না হুয়াওয়ে জিটিই শিগগিরই নিয়ে ভারত সরকারের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে

সংশ্লিষ্ট একটি সরকারি সূত্রমতে, সীমান্তে ভারত চীনের মধ্যে যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে তারই প্রতিক্রিয়ায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে কারণে বিএসএনএলের পক্ষ থেকে ফোরজি সেবার উন্নতিতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের জন্য নতুন করে টেন্ডার ডাকার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে শুধু সরকারি টেলিকম কোম্পানিই নয়, ব্যক্তি খাতের টেলিকম কোম্পানিগুলোকেও চীনা সরঞ্জাম বর্জনের নির্দেশনা দেয়া হলে নতুন করে ভেন্ডর বাছাই করতে হবে এক্ষেত্রে ভারতের টেলিকম খাতে ব্যবসার সুযোগ সৃষ্টি হবে নকিয়া এরিকসনের

ভারতী এয়ারটেল এবং ভোডাফোন আইডিয়ার মতো টেলিকম কোম্পানিগুলো তাদের বর্তমান নেটওয়ার্ক অবকাঠামো পরিচালনা এবং ব্যবস্থাপনায় হুয়াওয়ের সঙ্গে কাজ করছে অন্যদিকে জিটিই কাজ করছে রাষ্ট্রীয় টেলিকম কোম্পানি বিএসএনএলের নেটওয়ার্ক ব্যবস্থাপনায়

যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য বিরোধের জেরে হুয়াওয়ের নেটওয়ার্ক সরঞ্জামের নিরাপত্তা নিয়ে প্রথম প্রশ্ন তোলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন হুয়াওয়ে তাদের টেলিকম সরঞ্জামের মাধ্যমে মার্কিন নাগরিকদের তথ্য চীন সরকারের কাছে পাচার করার অভিযোগ তোলা হয়েছে এমন অভিযোগে গত বছর প্রতিষ্ঠানটির ওপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে মার্কিন বিচার বিভাগ একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটিকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয় যুক্তরাষ্ট্র-চীনের বাণিজ্য বিরোধের শিকার হুয়াওয়ে বিষয়ে কিছুটা দেরিতে হলেও নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেছিল ভারত ওই সময় মালয়েশিয়া, রাশিয়া ইতালির কাছ থেকেও ফাইভজি প্রযুক্তি নিয়ে ইতিবাচক সাড়া পায় হুয়াওয়ে তবে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফ্রান্স জাপানসহ অনেক দেশেই ফাইভজি প্রকল্প থেকে বাদ পড়েছে হুয়াওয়ে ভারতে ফাইভজি প্রকল্প থেকে বাদ পড়লে তা হুয়াওয়ের জন্য বড় ধরনের ব্যবসায় ক্ষতির কারণ হবে বলে মনে করা হচ্ছে কারণ যুক্তরাষ্ট্রের চাপে অনেক টেলিকম বাজার নকিয়া এরিকসনের সরঞ্জাম ব্যবহারে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন