বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

শেষ পাতা

বড় ব্যাংকের এমডিদের সঙ্গে গভর্নরের অনলাইন বৈঠক

আগস্টের মধ্যে প্রণোদনা প্যাকেজের অর্থছাড়ের তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকার ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের সুবিধা বড়রা পেলেও ছোটরা বঞ্চিত হচ্ছেন, এমন অভিযোগ উঠেছে ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে। অবস্থায় বৃহৎ শিল্পের পাশাপাশি এসএমই খাতের জন্য বরাদ্দ করা প্রণোদনা প্যাকেজের অর্থছাড়ের তাগিদ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। চলতি জুলাইয়ের মধ্যেই সিংহভাগ এবং আগস্টের মধ্যে প্যাকেজের অর্থছাড় দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

গতকাল দেশের বড় ব্যাংকগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের সঙ্গে অনলাইন ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে গভর্নর ফজলে কবিরের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে অন্তত ২৪টি সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকের শীর্ষ নির্বাহীরা অংশ নেন।

নভেল করোনাভাইরাসে সৃষ্ট অর্থনৈতিক বিপর্যয় থেকে দেশের উদ্যোক্তাদের সুরক্ষা দিতে লাখ কোটি টাকার বেশি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা দিয়েছে সরকার বাংলাদেশ ব্যাংক। এর মধ্যে বৃহৎ শিল্প সেবা খাতের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা। এসএমই খাতের জন্য গঠন করা হয়েছে ২০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা তহবিল। তবে প্রণোদনা তহবিল থেকে উদ্যোক্তারা অর্থ পাবেন ঋণ হিসেবে। ব্যাংকগুলো নিজেদের বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ধারকৃত অর্থ থেকে ঋণ বিতরণ করবে। ৩০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ থেকে এক বছরের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠান শতাংশ সুদে ঋণ পাবে। সুদের অর্ধেক তথা দশমিক শতাংশ দেবে সরকার, বাকি অর্ধেক পরিশোধ করবে ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান। আর ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিল থেকে এসএমই উদ্যোক্তারা ঋণ পাবেন শতাংশ সুদে। খাতের উদ্যোক্তাদের ঋণের শতাংশ সুদ সরকার পরিশোধ করবে।

সূত্র বলছে, ব্যাংকগুলো এখন পর্যন্ত ৩০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজের আওতায় বড় শিল্প উদ্যোক্তাদের ঋণ দিচ্ছে। এসএমই খাত নিয়ে এখনো কার্যক্রমই শুরু করেনি অনেক ব্যাংক। সব মিলিয়ে ১০ শতাংশের মতো আবেদন গ্রহণ করা হলেও সেটি যাচাই-বাছাইয়ের পর্যায়েই আটকে আছে।

অবস্থায় বড় ব্যাংকগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের নিয়ে আয়োজিত বৈঠকে গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, ব্যাংকগুলো শুধু বড়দের ঋণ দিলে হবে না। বরং এসএমই খাতকেও ঘুরে দাঁড় করাতে সহায়তা করতে হবে। এজন্য ব্যাংকগুলোকে চলতি জুলাইয়ের মধ্যে প্যাকেজের সিংহভাগ এবং আগস্টের মধ্যে পুরো অর্থ বিতরণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে প্রণোদনা প্যাকেজ নিয়ে মানুষের পাশে না দাঁড়ানো ব্যাংকগুলো থেকে সম্প্রতি সরকারি আমানত প্রত্যাহারের প্রস্তাব দিয়েছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) আর যেসব ব্যাংক প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নে কাজ করছে, তাদের সরকারি আমানত বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন