বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

প্রথম পাতা

ডিএসই-সিএসই

অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরির নির্দেশ বিএসইসির

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডিজিটাল বাংলাদেশের উদ্যোগের সঙ্গে সংগতি রেখে দেশের পুঁজিবাজারকে পূর্ণাঙ্গ অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে দুই স্টক এক্সচেঞ্জকে অনলাইন প্লাটফর্ম তৈরির নির্দেশ দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) তাছাড়া তালিকাভুক্ত কোম্পানি মিউচুয়াল ফান্ডগুলোর মাসিক শেয়ার ধারণ ইউনিট ধারণসংক্রান্ত তথ্য কমিশনে জমা দেয়ার শর্তও শিথিল করা হয়েছে।

গতকাল বিএসইসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম স্বাক্ষরিত আদেশে দুই স্টক এক্সচেঞ্জকে অতিসত্বর একটি একটি একীভূত অনলাইন ডাটা সংগ্রহ, তথ্য জমা বিতরণের জন্য প্লাটফর্ম চালু করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এতে লিস্টিং রেগুলেশন সিকিউরিটিজ আইনানুসারে তালিকাভুক্তির আবেদন, শেয়ার কিংবা ইউনিট ধারণ প্রতিবেদন, ঘোষণা, করপোরেট কার্যক্রম, আর্থিক ডিসক্লোজার, প্রকাশনা এবং মূল্যসংবেদনশীল তথ্যসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জমা দেয়ার ব্যবস্থা থাকবে। ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহারের ক্ষেত্রে এসব তথ্য স্টক এক্সচেঞ্জকে সফট হার্ড কপি দুভাবেই সংরক্ষণ করতে হবে, যাতে প্রয়োজনবোধে কমিশন এসব তথ্য যাচাই করতে পারে। দুই স্টক এক্সচেঞ্জকে বিষয়ে সব তালিকাভুক্ত কোম্পানি মিউচুয়াল ফান্ডকে অবগত করার জন্য নোটিস দেয়ার পরামর্শ দিয়েছে কমিশন। একই সঙ্গে ডিজিটাল প্লাটফর্ম চালুর বিষয়ে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে বিএসইসির কাছে প্রতিবেদন পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এখন থেকে সব তালিকাভুক্ত কোম্পানি মিউচুয়াল ফান্ডকে তাদের শেয়ার কিংবা ইউনিট ধারণসংক্রান্ত তথ্য মাসিক ভিত্তিতে দুই স্টক এক্সচেঞ্জের কাছে পাঠালেই চলবে, বিএসইসির কাছে পাঠাতে হবে না। তবে প্রতি তিন মাস অন্তর এসব তথ্য বিএসইসির কাছে পাঠাতে হবে। আর মাস শেষ হওয়ার পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জকে এসব তথ্যের সংক্ষিপ্তসার কমিশনের কাছে পাঠাতে হবে। পাশাপাশি এক্ষেত্রে স্টক এক্সচেঞ্জের কোনো পর্যবেক্ষণ কিংবা আইন লঙ্ঘনের বিষয় থাকলে সেটিও কমিশনকে জানাতে হবে। এছাড়া এসব তথ্য স্টক এক্সচেঞ্জকে সফট হার্ড কপি দুভাবেই সংরক্ষণ করতে হবে, যাতে কমিশন প্রয়োজনবোধে এগুলো যাচাই করতে পারে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন