রবিবার | আগস্ট ০৯, ২০২০ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

৩৫ হাজার কর্মী ছাটাইয়ের পদক্ষেপ নিচ্ছে এইচএসবিসি

বণিক বার্তা ডেস্ক

গত ফেব্রুয়ারিতেই বিশ্বব্যাপী ৩৫ হাজার কর্মী ছাটাইয়ের পদক্ষেপ নেয় হংকং অ্যান্ড সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন (এইচএসবিসি)। পরে তা স্থগিত হয়ে যায়। আজ বুধবার (১৭ জুন) প্রকাশিত ইকোনমিক টাইমসের খবরে বলা হচ্ছে, কর্মী ছাটাইয়ের পদক্ষেপটি ফের বাস্তবায়ন শুরু করবে ব্যাংকটি। 

বিশ্বব্যাপী ব্যাংকের ২ লাখ ৩৫ হাজার কর্মীকে পাঠানো মেমোতে প্রধান নির্বাহী নোয়েল কুইনের বরাতে বলা হয়েছে, ব্যাংক সব ধরনের এক্সটার্নাল নিয়োগ বন্ধ রাখবে। আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মচ্যুতিতে বিরতি দিতে পারবো না। এখন না হলে কখন? এই প্রশ্ন সব সময়ই ছিল। ব্যাংকের মুখপাত্রও কর্মীদের পাঠানো মেমোতে নোয়েল কুইনের এ বক্তব্য নিশ্চিত করেছেন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ইকোনমিক টাইমস।

২০১৯ সালে মুনাফা ৩৩ শতাংশ কমে যাওয়ায় চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রায় ৩৫ হাজার কর্মী ছাটাইয়ের ঘোষণা দেয় এইচএসবিসি কর্তৃপক্ষ। ব্যাংকটি বলছে, ২০২২ সালের মধ্যে ব্যাংক পুনর্গঠনের জন্য ৪৫০ কোটি ডলার ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্যাংকটির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নোয়েল কুইন বলেছেন, বর্তমানে এইচএসবিসির কর্মীসংখ্যা ২ লাখ ৩৫ হাজার। আগামী তিন বছরের মধ্যে তা ২ লাখে নামিয়ে আনা হবে। যেখানে এশিয়ার প্রভাবশালী এই ব্যাংকটি গত বছর কর পরিশোধ ছাড়া মুনাফা করেছে ১ হাজার ৩৩৫ কোটি ডলার।

ব্যাংকটি জানিয়েছে, মূলত ইউরোপে বিনিয়োগ আর বাণিজ্যিক কার্যক্রম প্রত্যাশিত না হওয়ায় ৭৩০ কোটি ডলার ক্ষতির মুখে পড়েছে তারা। তবে ৩৫ হাজার কর্মীকে ছাটাইয়ের ঘটনাটি আশঙ্কার তুলনায় বেশি, যা ব্যাংকটির মোট কর্মীর ১৫ শতাংশ। বিশ্লেষকদের আশঙ্কা ছিল, এবার হয়তো প্রায় ১০ হাজার কর্মী ছাটাই করা হবে।

বিবিসি বলছে, এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আমেরিকা আর ইউরোপের অর্ধশতাধিক দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে দ্য হংকং সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন। শুধু যুক্তরাজ্যেই এর কর্মীসংখ্যা ৪০ হাজারের বেশি। এইচএসবিসির এই ছাটাইয়ের কবলে পড়বেন ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ব্যাংকিং-বিনিয়োগ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত অনেক কর্মী।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন