বৃহস্পতিবার | আগস্ট ১৩, ২০২০ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

মাস্ক নিয়ে অবস্থান বদলালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বণিক বার্তা ডেস্ক

চীনে নভেল করোনাভাইরাস হানা দিয়েছে পাঁচ মাসেরও আগে। সেই থেকে এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্বে ৬৭ লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন, প্রাণ গেছে প্রায় চার লাখ মানুষের। কভিড-১৯ নিয়ে যখন গোটা বিশ্বই ওলটপালট তখনো মাস্ক নিয়ে গোলকধাঁধাঁ চলছেই! খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাই দ্বিধান্বিত। তারা আগে বলছিল, সুস্থ মানুষের মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই। কিন্তু এখন নিজেদের অবস্থান থেকে সরে এসে সংস্থাটি বলছে, করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে অবশ্যই জনসমক্ষে মাস্ক পরে চলতে হবে।

যদিও শুধু বলার জন্যই কথাটি বলেনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। নতুন প্রাপ্ত তথ্যে তারা দেখতে পেয়েছে, নাক ও মুখের যে সংক্রামক ড্রপলেটের মাধ্যমে ভাইরাসটি ছড়ায়, সেই ড্রপলেটের জন্য মাস্ক একটি বাধা হিসেবে কাজ করতে পারে।

কিছু দেশ আগে থেকেই ফেস মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছে কিংবা কোথাও কোথায়ও এটি পরাকে বাধ্যতামূলকও করা হয়েছে। বাংলাদেশেই যেমন জুন মাসের শুরুতে নতুন বিধি আরোপ করে দেয়া হয়েছে, যেখানে মাস্ক না পরে জনসমক্ষে গেলে জরিমানা ও অর্থদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য বলছিল- এমন কোনো প্রমাণ নেই যে, সুস্থ মানুষকে মাস্ক পরতে হবে। কিন্তু এখন তারা নিজেদের অবস্থান থেকে সরে এল। মাস্কের কার্যকারিতার পক্ষেই কথা বলল বৈশ্বিক স্বাস্থ্য সংস্থাটি। 

অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের মতো উন্নত ও ধনী দেশেও এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব ছিল। শুরুতে সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) মাস্কের প্রয়োজনীয়তার কথা বললেও ট্রাম্প প্রশাসন একে আমলে নেয়নি। পরে অবশ্য আমেরিকান প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়।

সংক্রমণের ঝুঁকি আছে এমন জায়গায় সাধারণ মানুষকে ‘কাপড়ের তৈরি নন-মেডিকেল মাস্ক’ পরার পরামর্শ দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কভিড-১৯ বিষয়ক টেকনিক্যাল এক্সপার্ট ডা. মারিয়া ভ্যান কেরখোভ। সংস্থাটি সব সময় পরামর্শ দিয়ে এসেছে, মেডিকেল মাস্ক শুধু অসুস্থ মানুষ ও তাদের শুশ্রুষায় নিয়োজিত নিয়োজিতরাই পরবেন। 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহের গবেষণার পরই তারা মাস্কের ব্যাপারে নতুন নির্দেশনা দিচ্ছে। ভ্যান কেরখোভ বলেন, ‘আমরা সরকারগুলোকে পরামর্শ দিচ্ছি, তারা যেন সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরার ব্যাপারে উৎসাহিত করে।’

একইসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, যেসব সরঞ্জামাদি ভাইরাসটির সংক্রমণের ঝুঁকি কমায় মাস্ক তার মধ্যে অন্যতম। কিন্তু এটি যেন মানুষের মধ্যে রক্ষাকবচের মিথ্যা ধারণা তৈরি না করে। সংস্থাটির ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রোস আধানোম গেব্রেইসাস বলেন, ‘মাস্ক কিন্তু নিজে থেকে আপনাকে কভিড-১৯ থেকে রক্ষা করবে না।’

সূত্র: বিবিসি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন