মঙ্গলবার | জুলাই ১৪, ২০২০ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

হোয়াইট হাউসের বাইরে বিক্ষোভকালে বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছিলেন ট্রাম্প

বণিক বার্তা অনলাইন

হোয়াইট হাউসের বাইরে বিক্ষোভ চলাকালীন ভূগর্ভস্থ বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত শুক্রবার রাতে প্রায় এক ঘণ্টা বাঙ্কারে ছিলেন তিনি। হোয়াইট হাউসের একজন কর্মকর্তা ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার একজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সিএনএন এ খবর জানিয়েছে। 

দুটি সূত্র সিএনএনকে জানায়, ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ও তাদের ছেলে ব্যারনকেও বাঙ্কারে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। 

প্রেসিডেন্ট পরিবারের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সূত্রটি বলেছে, কর্তৃপক্ষ যদি ট্রাম্পকে সরিয়ে নেয়, তাহলে পরিবারের সবাইকেই অর্থাৎ মেলানিয়া ও ব্যারনকেও সরিয়ে নিতে হবে। দ্বিতীয় সূত্রটি বলে, হোয়াইট হাউজের নিয়মই হলো, প্রেসিডেন্টকে জরুরি অপারেশন সেন্টারে স্থানান্তরিত করলে তার পরিবারের সদস্যদেরও সরানো হবে।

গত সপ্তাহে মিনিয়াপোলিসে এক পুলিশ কর্মকর্তা কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডকে শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় শুক্রবার রাতে হোয়াইট হাউসের বাইরে বিক্ষোভ করে সাধারণ মানুষ। আর এ বিক্ষোভকারীদের সামাল দেয়ার জন্য পরদিন ট্রাম্প সিক্রেট সার্ভিসের প্রশংসা করেন। শনিবার হোয়াইট হাউসের বিক্ষোভ শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর ট্রাম্প নিজেকে নিরাপদ ঘোষণা করেন। 

একাধিক টুইটে ট্রাম্প শুক্রবার সন্ধ্যায় তার সরকারি বাসস্থানের ভেতরে তাকে রক্ষার জন্য ইউএস সিক্রেট সার্ভিসের প্রশংসা করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ফ্লয়েডের মৃত্যুর ঘটনায় বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসের বাইরে জড়ো হওয়ায় তিনি ‘খুব একটা নিরাপদ’ বোধ করতে পারছিলেন না। বিক্ষোভকারীদের ‘ভয়’ দেখাতে ট্রাম্প বলেছিলেন, কুকুর ও অস্ত্রধারীরা হোয়াইট হাউসের গেটের ভেতরে অপেক্ষা করছে। 

ট্রাম্প ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বাউসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে দাবি করেন, এ ঘটনায় মেয়র ডিসি পুলিশকে পদক্ষেপ নেয়ার অনুমতি দেননি। যদিও পরে সিক্রেট সার্ভিস বলেছে, পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল।

পরের দিন ফ্লোরিডায় নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টারে নাসা-স্পেসএক্সের রকেট উৎক্ষেপণের পর দেয়া বক্তব্যে ট্রাম্প ওই প্রসঙ্গ তুলে তার ভাষায় ‘অধিকাংশ’ পুলিশ অফিসারের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেন। কোনো প্রমাণ ছাড়াই ট্রাম্প ফ্লয়েডের মৃত্যু এবং পরবর্তীতে দেশব্যাপী আন্দোলনের জন্য ফ্যাসিবাদ বিরোধী আন্দোলন এন্টিফা ও বামদের দোষারোপ করেন।

তিনি বলেন, আমি এর আগেও ন্যায়বিচার ও শান্তির সন্ধানকারী প্রতিটা আমেরিকানের বন্ধু ও সহযোগী হিসেবে আপনাদের সামনে দাঁড়িয়েছি। ট্র্যাজেডিকে পুঁজি করে লুটপাট, ডাকাতি, আক্রমণ ও ভীতি প্রদর্শনকারীদের বিরোধিতা করে আমি আপনাদের সামনে দাঁড়িয়েছি। ঘৃণা নয়, বিশৃঙ্খলা নয়, ন্যায়বিচার- এটিই এখন আমাদের মিশন।

সূত্র: সিএনএন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন