মঙ্গলবার | জুলাই ১৪, ২০২০ | ৩০ আষাঢ় ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

লকডাউন শিথিল করে দিল্লির সীমান্ত বন্ধ করে দিলেন কেজরিওয়াল

বণিক বার্তা অনলাইন

দিল্লির সীমান্ত এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছেন এ ক্যাপিটাল টেরিটোরির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আজ সোমবার দুপুরে তিনি এই ঘোষণা দেন। তবে জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী ও সরকারি পাস থাকা ব্যক্তিরা যাতায়াত করতে পারবেন। তাছাড়া অন্য রাজ্যের কেউ চিকিৎসা নেয়ার জন্য আসতে চাইলেও বাধা দেয়া হবে না। যদিও দিল্লির হাসপাতালগুলোতে এখন কোনো জায়গা খালি নেই।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন লকডাউন শিথিল করার ঘোষণাও দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সেলুন, হাটবাজার, দুই চাকার যান, শিল্পকারখানা, হোম ডেলিভারির রেস্টুরেন্ট, বাস (সর্বোচ্চ ২০ আরোহী) এবং অফিস আদালত ও নির্মাণ কার্যক্রম চালু করার ঘোষণা দিয়েছেন। তবে শপিংমল, হোটেল-রেস্টুরেন্ট, প্রার্থনাগৃহ, মেট্রো, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও স্পা সেন্টার বন্ধ থাকবে। 

আগামী শুক্রবার পর্যন্ত রাজধানীর সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা দিয়ে পরবর্তীতে সীমান্ত খোলার ব্যাপারে জনসাধারণের মতামত চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল। তিনি বলেছেন, সীমান্ত সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে, যাতে শহরের হাসপাতাল ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে করোনা–সংক্রমিত ব্যক্তিদের নিয়ন্ত্রণ করা যায়। তিনি বলেন, যে মুহূর্তে আমরা সীমানা খুলব, শহরের বাইরে থেকে লোকজন চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে আসবেন। দিল্লির হাসপাতালগুলো এখানকার মানুষের জন্যেই সংরক্ষণ করা উচিত। একই সঙ্গে দিল্লি তো দেশের মধ্যেই, কাজেই এটি কারও চিকিৎসা দেয়ার বিষয় অস্বীকার করবো কী করে?

দিল্লিতে আজ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। মারা গেছে ৪৭৩ জন। ভারতের অন্যান্য রাজ্যের সঙ্গে তুলনায় সংক্রেমণের দিক থেকে দিল্লির অবস্থান এখন তৃতীয়। সংক্রমণের সংখ্যা দৈনিক হু হু করে বাড়ছে।

তবে মুখ্যমন্ত্রী দিল্লিবাসীদের আশ্বস্ত করে বলেছেন, কভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে সাড়ে ৯ হাজার শয্যা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি নিশ্চয়তা দিতে পারি, আপনি বা আপনার পরিবারের কেউ আক্রান্ত হলে একটি শয্যা পাবেন।

সূত্র: এনডিটিভি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন