মঙ্গলবার | জুলাই ১৪, ২০২০ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

প্রথম পাতা

দেশে একদিনে রেকর্ড ৪০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২ হাজার ৫৪৫

নিজস্ব প্রতিবেদক

কভিড-১৯- আক্রান্ত ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়। এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এটি। এর আগে ২৪ ৩০ মে সর্বোচ্চ ২৮ জন করে কভিড-১৯ রোগীর মৃত্যু হয়। এখন পর্যন্ত রোগে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৫০। সর্বোচ্চ মৃত্যুর দিনে গতকাল সর্বোচ্চসংখ্যক রোগীও শনাক্ত হয়েছে। মোট রোগীর সংখ্যা চলে এসেছে ৫০ হাজারের কাছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গতকালের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে জানানো হয়, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ১১ হাজার ৮৭৬ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় হাজার ৫৪৫ জনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এখন পর্যন্ত দেশে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ৪৭ হাজার ১৫৩। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, আক্রান্তদের মধ্যে হাজার ৭৮১ জন সুস্থ হয়েছেন।

শেষ ২৪ ঘণ্টায় যে ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের ৩৩ জনই পুরুষ। বাকি সাতজন নারী। ২৮ জন ছিলেন ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা, আটজন চট্টগ্রামের। বাকিদের মধ্যে খুলনার দুজন, রংপুরের একজন রাজশাহী বিভাগের একজন ছিলেন। ৪০ জনের মধ্যে ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে চারজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আটজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে পাঁচজন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন রোগী ছিলেন।

করোনার ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে গতকালের বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা বলেন, লকডাউন উঠে গেছে। এখন সবাইকে সাবধান থাকতে হবে। এরই মধ্যে বিষয়ে একটি গাইডলাইন দেয়া হয়েছে, করোনা প্রতিরোধে যা সবাইকে মেনে চলতে হবে। মাস্ক পরা অত্যাবশ্যক। ধূমপায়ীরা করোনায় আক্রান্ত হলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ার ঝুঁকি বেশি এবং মৃত্যুঝুঁকিও বেড়ে যায়।

করোনায় আক্রান্তদের টেলিফোনে চিকিৎসাসেবা সম্পর্কে অধ্যাপক নাসিমা বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ সিডিসি শাখা একটি সেবা চালু করেছে, যার নাম সিডিসি: কেয়ার ফর অল এই সেবাটি বর্তমানে অল্প পরিসরে চালু আছে। এর মাধ্যমে আক্রান্ত ব্যক্তিদের টেলিফোনে কথা বলা, বাসায় অবস্থানের সময় তাদের অসুস্থতাসংক্রান্ত পুষ্টিবিষয়ক পরামর্শ কিংবা বাসা জীবাণুমুক্ত করার প্রক্রিয়াটি তারা জানিয়ে দিচ্ছেন। যিনি আক্রান্ত তার শারীরিক অবস্থা জানার জন্য প্রথম দিন ফোন করার পাশাপাশি, সপ্তম ১৪তম দিনে পুনরায় ফোন করে খোঁজখবর নেবেন। সিডিসির এই সেবার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সেলফোন অপারেটর রবি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন