শনিবার | জুলাই ১১, ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

পণ্যবাজার

ইউক্রেনে বাড়তির দিকে সূর্যমুখী তেলের রফতানি মূল্য

বণিক বার্তা ডেস্ক

চাঙ্গা হয়ে উঠেছে ইউক্রেনের সূর্যমুখী তেলের রফতানি মূল্য। নভেল করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পর দেশটি থেকে পণ্যটির রফতানি চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে। সঙ্গে বাড়ছে পণ্যটির দাম। এর মধ্যে মহামারী পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বিশ্বের অনেক দেশ লকডাউন শিথিল করে দিয়েছে। ব্যবসা-বাণিজ্যে পুনরায় গতি ফিরেছে। পরিস্থিতি ইউক্রেনের সূর্যমুখী তেলের রফতানি চাহিদা আরো বাড়িয়ে তুলেছে। এর জের ধরে সর্বশেষ সপ্তাহে পণ্যটির দাম আরো ঊর্ধ্বমুখী হয়ে উঠেছে। দেশটির কৃষিবিষয়ক শীর্ষ কনস্যালট্যান্সি এপিকে-ইনফর্ম সম্প্রতি তথ্য জানিয়েছে। খবর ওয়ার্ল্ডগ্রেইনডটকম।

এপিকে-ইনফর্মের নোটে জানানো হয়েছে, ২৭ মে শেষ হওয়া সপ্তাহে ফ্রি অন বোর্ড আগামী জুনে সরবরাহ চুক্তিতে ইউক্রেনের প্রতি টন সূর্যমুখী তেলের দাম দাঁড়িয়েছে গড়ে ৭৫৫ ডলার। আগের সপ্তাহে একই পরিমাণ সূর্যমুখী তেলের দাম ছিল গড়ে ৭২৫ ডলার। সে হিসাবে এক সপ্তাহের ব্যবধানে পণ্যটির দাম বেড়েছে টনপ্রতি ৩০ ডলার।

দুই মাস ধরে ইউক্রেনের সূর্যমুখী তেলের রফতানি মূল্য ক্রমেই বাড়ছে। এপ্রিলের শুরু থেকে জুনের মধ্যে সরবরাহ করা ফ্রি অন বোর্ড চুক্তিতে প্রতি টন সূর্যমুখী তেলের দাম ছিল ৬৭০-৬৮৫ ডলার। ভোজ্যতেলটির দাম বাড়তে বাড়তে সর্বশেষ সপ্তাহে সাড়ে ৭০০ ডলার ছাড়িয়ে গেছে।

ইউক্রেন বিশ্বের শীর্ষ সূর্যমুখী তেল রফতানিকারক দেশ। প্রতি বছরের সেপ্টেম্বরে দেশটিতে পণ্যটির নতুন মৌসুম শুরু হয়। শেষ হয় পরের বছরের আগস্টে। এপিকে-ইনফর্মের তথ্য অনুযায়ী, চলতি মৌসুমে দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে মোট ৬২ লাখ টন সূর্যমুখী তেল রফতানি হতে পারে। এরই মধ্যে দেশটি মোট ৩৮ লাখ ৫৮ হাজার টন সূর্যমুখী তেল রফতানি করেছে, আগের মৌসুমের একই সময়ের তুলনায় যা দ্বিগুণ। ২০১৮-১৯ মৌসুমজুড়ে দেশটি মোট ৬০ লাখ ৬৩ হাজার টন সূর্যমুখী তেল রফতানি করেছিল।

এদিকে চলতি মৌসুমে চাঙ্গা ভাব বজায় থাকলেও আগামী মৌসুমে পণ্যটির রফতানি কমিয়ে আনতে পারে ইউক্রেন। এপিকে-ইনফর্মের প্রাক্কলন অনুযায়ী, ২০২০-২১ মৌসুমে দেশটি চলতি মৌসুমের তুলনায় দশমিক শতাংশ কমিয়ে মোট ৬১ লাখ ৫০ হাজার টন সূর্যমুখী তেল রফতানি করতে পারে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন