বৃহস্পতিবার | জুলাই ১৬, ২০২০ | ১ শ্রাবণ ১৪২৭

পণ্যবাজার

১৯৯৯ সালের পর মাসভিত্তিক সর্বোচ্চে ব্রেন্টের দাম

বণিক বার্তা ডেস্ক

২০২০ সালের শুরু থেকেই পতনে রয়েছে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজার। তবে চলতি মাসের প্রথম তিন সপ্তাহে পণ্যটির দামে টানা চাঙ্গা ভাব বজায় ছিল। ফলে সর্বশেষ সপ্তাহে বড় ধরনের পতন সত্ত্বেও চলতি মাসে জ্বালানি তেলের বাজার ১১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মাসভিত্তিক দামের রেকর্ড ছুঁয়েছে। খবর রয়টার্স।

মে মাসে আগের মাসের তুলনায় ব্রেন্টের দাম বেড়েছে ৩৭ শতাংশ ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের (ডব্লিউটিআই) দাম বেড়েছে ৭৫ শতাংশ। মাসিক ভিত্তিতে পণ্যটির মূল্যবৃদ্ধির হার ১৯৯৯ সালের মার্চের পর থেকে সর্বোচ্চ।

জ্বালানি তেলের বাজার বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন, অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের মাসভিত্তিক সর্বোচ্চ দামের পেছনে প্রভাবক হিসেবে কাজ করেছে  ওপেক নন-ওপেকের রেকর্ড জ্বালানি তেল উত্তোলন হ্রাস চুক্তি। এছাড়া নভেল করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বিশ্বের শীর্ষ জ্বালানি তেল ভোক্তা দেশ চীনে পণ্যটির চাহিদা বাড়তে শুরু করেছে, যা মূল্যবৃদ্ধির ক্ষেত্রে অন্যতম ভূমিকা রেখেছে।

এদিকে সর্বশেষ শুক্রবার জ্বালানি তেলের বাজার বড় আকারের পতনে পড়ে। যুক্তরাষ্ট্রে পণ্যটির চাহিদা হ্রাস, দক্ষিণ কোরিয়ায় নভেল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ধাপের প্রাদুর্ভাব আশঙ্কা এবং যুক্তরাষ্ট্র চীনের মধ্যকার সম্পর্কের অবনতি এর পেছনে প্রভাবক হিসেবে কাজ করেছে বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা। তবে সর্বশেষ কার্যদিবসে আগের দিনের তুলনায় পণ্যটির দাম ফের বেড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে গতকাল প্রতি ব্যারেল ব্রেন্টের দাম দাঁড়িয়েছে গড়ে ৩৭ ডলার ৩৫ সেন্ট, আগের দিনের তুলনায় যা ডলার ৮১ সেন্ট বা দশমিক শতাংশ বেশি। একই দিন ডব্লিউটিআইয়ের দাম আগের দিনের তুলনায় ডলার ৬১ সেন্ট বা দশমিক ৭৮ শতাংশ বেড়ে ব্যারেলপ্রতি ৩৫ ডলার ৩২ সেন্টে উন্নীত হয়েছে।

নরওয়েভিত্তিক রাইস্টার্ড এনার্জির জ্বালানি তেলের বাজারবিষয়ক প্রধান গবেষক বোজনার তোনহাউজেন্ড বলেন, মুহূর্তে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক বাজার কয়েকটি ঘটনার দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে। এর মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুমকিকে তোয়াক্কা না করে হংকংয়ের নতুন জাতীয় সুরক্ষা আইন কার্যকর করার প্রস্তাব অনুমোদন করেছেন চীনের আইনপ্রণেতারা। ঘটনায় দুই দেশের সম্পর্ক আরো বৈরী হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে জ্বালানিটির অন্যতম শীর্ষ ভোক্তা দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায় নভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপ পুনরায় বেড়েছে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন