মঙ্গলবার | জুলাই ১৪, ২০২০ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

শিল্প বাণিজ্য

প্রান্তিক মুনাফায় ধস

ভারতে টিভিএস মোটরসের শেয়ারে বড় দরপতন

বণিক বার্তা ডেস্ক

ভারতের পুঁজিবাজারে টিভিএস মোটরসের শেয়ারের বড় দরপতন দেখা দিয়েছে। গতকাল দেশটির পুঁজিবাজারে টিভিএসের শেয়ারের দাম দশমিক শতাংশ পড়ে যায়। চতুর্থ প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) কোম্পানিটির পুঞ্জীভূত নিট মুনাফা ৪৩ দশমিক শতাংশ কমে যাওয়ার তথ্য প্রকাশিত হওয়ার পরই টিভিএসের শেয়ারের দাম দ্রুত নিম্নমুখী হওয়া শুরু করে। খবর লাইভ মিন্ট।

কোম্পানির হিসাবে চতুর্থ প্রান্তিকে টিভিএসের পুঞ্জীভূত নিট মুনাফা কমে দাঁড়িয়েছে ৮১ কোটি ৮৫ লাখ রুপিতে। সময়ে দুই চাকা বা টু হুইলার গাড়ি থেকে কোম্পানিটির আয় এসেছে হাজার ১২৮ কোটি ৬৭ লাখ রুপি। যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ১৭ শতাংশ কম। আর অর্থবছরের শেষ প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটির কর-পূর্ববতী মুনাফা এসেছে ১১৪ কোটি ৮৩ লাখ রুপি। যেখানে গত বছরের একই সময়ে কর-পূর্ববর্তী মুনাফা ছিল ২১৭ কোটি ১৯ লাখ রুপি। সেই হিসাবে, প্রান্তিকে মুনাফায় বড় ধরনের ধস নেমেছে টিভিএসের। এমন প্রতিবেদনের পরই মূলত টিভিএসের শেয়ারের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করে।

গতকাল বেলা ২টার কিছু আগে টিভিএসের শেয়ারের দাম দশমিক শতাংশ কমে ৩৩০ দশমিক ৭৫ রুপিতে লেনদেন হয়। শেয়ারবাজারের সেনসেক্স সূচক সময় দশমিক শতাংশ কমে ৩২ হাজার ৩৩ দশমিক ৪৭ পয়েন্টে দাঁড়ায়।

টিভিএস জানিয়েছে, তারা কার্বন নির্গমন মান মেনে ভারত স্টেজ সিক্সে (বিএস-) সফলভাবে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছে। চতুর্থ প্রান্তিকে সরবরাহ করা গাড়ির মধ্যে ৮৫ শতাংশই মানের গাড়ি বলেও জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এর আগে ২০১৮ সালের অক্টোবরে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট কার্বন নির্গমন মান দুই ধাপ বাড়ানোর জন্য গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলোকে সময় বেঁধে দেয়। সময় অনুযায়ী, চলতি বছরের এপ্রিলের মধ্যে গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলোকে বিএস- থেকে বিএস-- উন্নীত করার নির্দেশ দেয়া হয়। আর কারণেই নির্দেশনা অনুসরণ করে টিভিএস চতুর্থ প্রান্তিকে ৮৫ শতাংশই গাড়িতে বিএস- মান অনুসরণ করেছে।

ভারতীয় আর্থিক সেবাদানকারী ফার্ম মতিলাল ওসওয়ালের বিশ্লেষকরা গ্রাহকদের উদ্দেশে এক নোটে বলেন, বিএস--এর কারণে কোম্পানির খরচ বেড়েছে। যার প্রভাব পড়েছে পরিচালন ব্যবস্থাপনার ওপর। এছাড়া বিএস--এর মজুদ গাড়ি মূল্যহ্রাসে বিক্রি করতে হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির, যার কারণে টিভিএসের আয় কমেছে।

আয় মুনাফা কমে যাওয়ার পাশাপাশি সময়ে টিভিএসের বিক্রিও কমেছে। প্রতিষ্ঠানটির দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরে তারা ৩২ লাখ ৬৩ হাজার ইউনিট গাড়ি বিক্রি করেছে। যেখানে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিক্রির পরিমাণ ছিল ৩৯ লাখ ১৪ হাজার ইউনিট। আর ৩১ মার্চ শেষ হওয়া চতুর্থ প্রান্তিকে রফতানিসহ দুই তিন চাকার গাড়ি বিক্রি হয়েছে লাখ ৩৩ হাজার ইউনিট। যেখানে গত বছরের একই প্রান্তিকে বিক্রি ছিল লাখ হাজার ইউনিট।

খাতসংশ্লিষ্ট বিশ্লেষকরা মনে করছেন, নভেল করোনাভাইরাসের কারণে চলমান লকডাউনের ফলে আগামীতেও গাড়ি বিক্রিতে ধস নামতে পারে। তাই ২০২০-২১ অর্থবছরে টিভিএসের গাড়ি বিক্রির প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ২৪ লাখ ইউনিট। তবে ২০২১-২২ অর্থবছরে বাজার আবার চাঙ্গা হওয়ার সম্ভাবনা দেখছে প্রতিষ্ঠানটি। সময় বিক্রির প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ৩৩ লাখ ইউনিট।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন