রবিবার | জুলাই ১২, ২০২০ | ২৭ আষাঢ় ১৪২৭

প্রথম পাতা

পুঁজিবাজার চালুর বিষয়ে কমিশনের অনাপত্তি

রোববার লেনদেন শুরু হচ্ছে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন চালুর বিষয়ে অনাপত্তি দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) গতকাল বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৭২৬তম কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর কমিশনের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) আগামী রোববার থেকে লেনদেন চালুর ঘোষণা দিয়েছে। লেনদেন চালু থাকবে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত।

কমিশন সভা শেষে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক মো. আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, কভিড-১৯-এর বিস্তার রোধে স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রণীত সামাজিক দূরত্ব স্বাস্থ্যবিধিসংক্রান্ত অফিস আদেশ পরিপালন সাপেক্ষে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন সেটেলমেন্টসহ -সংক্রান্ত সব কর্মকাণ্ড পুনরায় শুরু করার বিষয়ে বিএসইসির পক্ষ থেকে অনাপত্তি প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কমিশনের অনাপত্তি পাওয়ার পর দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ডিএসই ৩১ মে থেকে লেনদেন চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্সচেঞ্জটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে, সব ধরনের সুরক্ষা নিশ্চিত করে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ডিএসইর লেনদেন কার্যক্রম, ক্লিয়ারিং হাউজের কার্যক্রমসহ সব ধরনের দাপ্তরিক কার্যক্রম চালু থাকবে।

এরই মধ্যে ডিএসই সব ব্রোকারেজ হাউজকে কভিড-১৯- সতর্কতার জন্য হ্যান্ড শেক আলিঙ্গন না করা; পরিমিত দূরত্ব বজায় রাখা; যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী গ্রাহকের হাঁচি, কাশি কিংবা সন্দেহজনক লক্ষণ রয়েছে তাদের শনাক্তকরণ; অফিস প্রাঙ্গণে প্রবেশের জন্য প্রতিবার হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা; ব্রোকারেজ হাউজে কর্মচারী গ্রাহকদের মাস্ক সরবরাহ করা; দর্শনার্থীদের অফিসে প্রবেশ নিরুৎসাহিতকরণ; কর্মীদের শিফটিং ব্যবস্থা করা এবং অফিসে মুখোমুখি বৈঠক থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হক বণিক বার্তাকে বলেন, সরকারি ছুটির মেয়াদ বাড়লেও যাতে এক্সচেঞ্জ চালু রাখা যায়, সেজন্য আমরা প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলাম। এখন যেহেতু সরকার সাধারণ ছুটির মেয়াদ না বাড়িয়ে শর্তসাপেক্ষে সীমিত আকারে সব অফিস খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছে এবং বিএসইসির পক্ষ থেকেও পুঁজিবাজার চালুর বিষয়ে অনাপত্তি জানানো হয়েছে ফলে এক্সচেঞ্জ কার্যক্রম চালু করার ক্ষেত্রে আর কোনো বাধা নেই। রোববার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে টানা তিন ঘণ্টা ডিএসইতে লেনদেন চালু থাকবে বলে জানান তিনি।

দেশের আরেক পুঁজিবাজার সিএসইও রোববার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত লেনদেন চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্সচেঞ্জটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মামুন-উর-রশিদ বলেন, আমরা প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।  

রোববার থেকে সিএসইতে লেনদেন শুরু হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার ২৬ মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছিল। এরপর দ্বিতীয় দফায় ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। ছুটি তৃতীয় দফায় বাড়ে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এরপর চতুর্থ দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। তারপর পঞ্চম দফায় মে পর্যন্ত ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয়েছিল। কিন্তু পরিস্থিতি উন্নতি না হওয়ায় ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয় ১৫ মে পর্যন্ত। সর্বশেষ ৩০ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ায় সরকার। সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির সঙ্গে সংগতি রেখে ২৬ মার্চ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেন সেটেলমেন্ট কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়।

পুঁজিবাজারে লেনদেন চালু হলেও ফ্লোর প্রাইসের বিষয়টি আপাতত বলবৎ থাকছে বলে জানিয়েছেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম। তিনি বণিক বার্তাকে বলেন, প্রথম কযেকদিন আমরা পুঁজিবাজারের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করব। লেনদেন শুরু হওয়ার পর যদি বাজার ঊর্ধ্বমুখী থাকে তাহলে ফ্লোর প্রাইসের প্রয়োজনীয়তা এমনিতেই থাকবে না। এক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষায় কমিশন কাজ করবে বলে জানান তিনি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন