রবিবার | জুলাই ১২, ২০২০ | ২৭ আষাঢ় ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

করোনায় যেভাবে বদলে যাচ্ছে লাক্সারি ইন্ডাস্ট্রি

বণিক বার্তা অনলাইন

কভিড-১৯ সবকিছু বদলে দিচ্ছে, বাদ যাচ্ছে না বিলাসিতার দুনিয়াও। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লাক্সারি ও ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রি ভবিষ্যতে আরো ডিজিটাল ও টেকসই রূপ নেবে। বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের করা এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, কভিড-১৯ এর আঘাতে বিলাসদ্রব্য ও ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির ব্যবসা গত বছরের তুলনায় এবছর ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ হ্রাস পাবে। অর্থনৈতিক ও স্বাস্থ্য সংকট কেনাকাটার ধরন, ফ্যাশনের ট্রেন্ডকে বদলে দেবে।

দুনিয়ার বড় বড় ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলো এখন স্যানিটাইজার, ফেস মাস্ক কিংবা ল্যাবরেটরির কোট বানাচ্ছে। অনেকে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ও কর্মীদের আর্থিক সহায়তা দেয়ার পরিকল্পনা করেছে।

মহামারীজনিত পরিস্থিতি সামলাতে ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিকে নতুন করে পরিকল্পনা করতে হচ্ছে। ব্র্যান্ডগুলো তাদের গ্রীষ্মের কালেকশন বিক্রি করতে পারছে না। চীনে অবশ্য বিলাসী ব্র্যান্ডগুলো অনলাইনে প্রচুর বিক্রি করতে পেরেছে, আর এটা সম্ভব হয়েছে মূলত উইচ্যাট অ্যাপের কারণে। তবে সব কোম্পানি তাদের ডেলিভারি নিশ্চিত করতে পারেনি। ব্র্যান্ডগুলো শুধু বিক্রি নিয়ে সমস্যায় পড়ছে না বরং সরবরাহ নিয়েও বিপদ হচ্ছে। ইতিমধ্যে বিলাসী ও ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলো কিছু নতুন কৌশল নিয়ে ভাবছে। যার মধ্যে আছে ডিজিটাল বিপণন ব্যবস্থায় জোর দেয়া। এখানে পণ্য ডেলিভারি, নিরাপদ লেনদেন এবং সময়মতো ডেলিভারির বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে। এক্ষেত্রে অনেকে নিজস্ব ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করবে অথবা বাজারের অন্য কোনো মাধ্যমের ওপর ভরসা রাখবে।

কভিড-১৯ মহামারী শুরুর আগেই বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপ অনুমান করেছিল ২০১৮ সালে পুরনো পণ্যের ২২ বিলিয়ন ইউরোর বাজার ২০২১ সালে ১২ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। সামনের অর্থনৈতিক মন্দায় মানুষ পুরনো পণ্য কেনার জন্য আগ্রহী হবে।

অন্যদিকে গ্রাহকরাও সম্ভভত আরেকটু দায়িত্বশীল হয়ে উঠবেন। তারা বিলাসী কেনাকাটায় কিছুটা লাগাম টানতে পারেন। এক্ষেত্রে ব্র্যান্ডগুলো তাদের বৈচিত্র ও পণ্যের সংখ্যা হ্রাস করতে পারে।

আগামী দিনে ফ্যাশন শো, গণজমায়েত হ্রাস পাবে। একারণে ফ্যাশন হাউজগুলো ডিজিটাল মাধ্যমে গ্রাহক পর্যায়ে প্রচারণা চালাতে আগ্রহী হবে।
ছোট ফ্যাশন হাউজগুলোর টিকে থাকা কঠিন হবে। এ সুযোগে বড় কোম্পানিগুলো ছোটদের কিনে নিতে পারে। এখন সেক্ষেত্রে দামও কম দিতে হবে। অর্থনীতির ইতিহাসে মন্দার সময় এম ঘটনা ঘটেছে। এবার সেটা ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলোর ক্ষেত্রেও দেখা যেতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন কেনাকাটা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে মানুষকে এখন অনেক ভাবতে হবে আর তা সৃষ্টি করতে পারে ‘স্লো লাক্সারি’ ধারণার।

সূত্র : স্ক্রলইন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন