বৃহস্পতিবার | জুলাই ১৬, ২০২০ | ৩১ আষাঢ় ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

ভিত্তিহীন টুইট নিয়ে মুখোমুখি ট্রাম্প-টুইটার

বণিক বার্তা ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইট বার্তাগুলোয় ‘ভিত্তিহীন’ লেবেল জুড়ে দিয়েছে টুইটার। অসত্য বক্তব্য উপস্থাপনের দায়ে অভিযুক্ত ট্রাম্পের টুইট বার্তাগুলোয় লাগাম টানার দীর্ঘদিনের দাবিতে এবারই প্রথম সাড়া দিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি। অন্যদিকে এর কড়া প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন ট্রাম্পও। টুইটারের বিরুদ্ধে চলতি বছর অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলেছেন তিনি। খবর এএফপি।

প্রতিক্রিয়ায় ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় লেখেন, টুইটার মুক্তমতের কণ্ঠ পুরোপুরি স্তব্ধ করে দিতে চায়। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমি তা হতে দিতে পারি না।

গতকাল মঙ্গলবার ট্রাম্পের দুটি টুইটবার্তাকে ভিত্তিহীন হিসেবে চিহ্নিত করে। এসব টুইট বার্তায় ট্রাম্প দাবি করেন মেইল-ইন ভোটিংয়ের মাধ্যমে নির্বাচনে জালিয়াতি ও কারচুপির সম্ভাবনা তৈরি হয়।
 
এ টুইট বার্তাগুলোর নিচে টুইটারের পক্ষ থেকে একটি লিংক পোস্ট করা হয়, যার শিরোনাম ছিলো, মেইল-ইন ভোটিং সম্পর্কে প্রকৃত তথ্য যাচাই করে নিন। সিএনএন, ওয়াশিংটন পোস্ট ও অন্যান্য মিডিয়ার বরাত দেয়া লিংকগুলোর সঙ্গে ট্রাম্পের টুইট বার্তাগুলোয় ভিত্তিহীন ট্যাগ দেয় টুইটার।

এ বিষয়ে টুইটারের বক্তব্য হলো, ট্রাম্প বিভ্রান্তিকরভাবে দাবি করেছেন, মেইল-ইন ব্যালটের কারণে নির্বাচন কারচুপিময় হয়ে উঠবে। যদিও ফ্যাক্ট চেকাররা বলছে মেইল-ইন ব্যালটের সঙ্গে ভোট জালিয়াতির কোনো সম্পর্ক নেই।

দীর্ঘদিন ধরেই টুইটার ব্যবহার করে আট কোটি ফলোয়ারের মধ্যে বিদ্বেষ, ষড়যন্ত্র তত্ত্ব, ভুয়া খবর ছড়ানোর অভিযোগ রয়েছে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সমালোচকরা বারবার ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তুললেও, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সংঘাতের আশঙ্কায় বিষয়টিকে এড়িয়ে গিয়েছে টুইটার।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন