সোমবার | আগস্ট ১০, ২০২০ | ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭

শিল্প বাণিজ্য

উপহার সামগ্রী নিয়ে ৭০০০ পরিবারের পাশে বেজা

নভেল করোনাভাইরাসের এই মহামারীতে উপহার সামগ্রী নিয়ে সাত হাজার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)। এর মধ্যে চার হাজার পরিবারকে উপহার সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ও উত্তরবঙ্গে পিছিয়ে পড়া জেলাগুলোতে আরো তিন হাজার পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে বেজা কর্তৃপক্ষ।

করোনাভাইরাস এর প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া দেশের সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক অঞ্চল মীরসরাই, ফেনী ও সীতাকুন্ডু  যা পরবর্তীতে নামকরণ করা হয় ‘বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর’। শিল্পনগরটির পার্শ্ববর্তী সোনাগাজী ও মীরসরাই উপজেলাসহ, জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলের পার্শ্ববর্তী এলাকা, কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার সোনাদিয়া ইকো-টুরিজ্যম পার্ক এলাকা  ইতোমধ্যে প্রায় ২৫০০ পরিবারের মধ্যে উপহার সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে।

করোনার সংক্রামন ঠেকাতে ২৬ মার্চ সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর সারা দেশে কার্যত অচল। সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বন্ধ হয়ে গেছে। বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরসহ অন্যান্য অর্থনৈতিক অঞ্চলেল কাজও চলছে সীমিত আকারে এতে করে কর্মহীন হয়ে পড়েছে সেখানকার কর্মরত অনেক শ্রমিকরা। এমন বাস্তবতায় এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

এছাড়া রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালি উপজেলা ও সদর উপজেলা, বান্দরবন জেলা সদর উপজেলায় ১৫০০ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। পরবর্তীতে আম্ফানের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত জেলাসমূহসহ উত্তরবঙ্গে পিছিয়েপড়া জেলাসমূহে আরও প্রায় ৩০০০ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরন কার্যক্রমের পরিকল্পনা রয়েছে। 

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের অংশ হিসাবে বেজা এ উপহার সমাগ্রী সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পেরে আনন্দিত। এ কাজে সহযোগিতা করার জন্য বাংলাদেশ  ইকোনমিক জোন ইনভেস্টর এসোসিয়েশন, সিটি, মেঘনা, টিকে গ্রুপ ও আব্দুল মোনেম লিমিটেডকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি আরো বলেন- বেজা আগামীতে পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য অর্থনৈতিক অঞ্চলেও বেকার শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের পরিকল্পনা করছে। 

প্রসঙ্গত, দেশব্যাপী ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কাজ করছে বেজা। ইতোমধ্যে ২৮টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কাজ শুরু করা হয়েছে; যার মধ্যে ৮টি অর্থনৈতিক অঞ্চল হতে উৎপাদনও শুরু হয়েছে। বেজার নিজস্ব উদ্যোগের পাশাপাশি বাংলাদেশ ইকোনমিক জোন ইনভেস্টর এসোসিয়েশন, সিটি গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপ, টিকে গ্রুপ ও আব্দুল মোনেম লিমিটেড এ কাজে সহযোগিতা করেছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এসব উপহার সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন