শুক্রবার | আগস্ট ১৪, ২০২০ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

করোনা

টাচস্ক্রিন নিয়ে সতর্কতা

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত পুরো দুনিয়া। যেহেতু এটি নতুন ধরনের ভাইরাস তাই মানুষ থেকে মানুষে এর ছড়ানোর প্রক্রিয়া সম্পর্কে শতভাগ নিশ্চিতভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে একই ধরনের অন্য ভাইরাসগুলো কাশির মাধ্যমে শ্বাসযন্ত্র থেকে নির্গত ড্রপলেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে থাকে। যে কারণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে হাঁচি-কাশির সময় টিস্যু ব্যবহার করা এবং মুখ মাস্কে ঢেকে রাখার পরামর্শ দিয়েছে। সে সঙ্গে বারবার হাত ধোয়ার পরামর্শও দেয়া হয়েছে। এছাড়া তারা বলেছে হাত দিয়ে নাক-মুখ স্পর্শ না করতে। অবস্থায় জনসমাগমের স্থানে সম্ভাব্য সংক্রমিত বস্তুগুলো কি স্পর্শ করা অনুচিত? কোনো কোনো ক্ষেত্রে সেটি সম্ভব হলেও, অনেক কিছু স্পর্শ না করে থাকা কঠিন।

টাচস্ক্রিন কি বিপজ্জনক

বিভিন্ন গবেষণা বলছে, সার্স মার্সের মতো করোনাভাইরাস তিন ঘণ্টার বেশি বাতাসে থাকতে পারে। কিন্তু ধাতব বস্তু, কাচ এবং প্লাস্টিকে এটি দুই বা তিনদিন পর্যন্ত থাকতে পারে।

ইউনিভার্সিটি অব সাউদাম্পটনের প্রফেসর উইলিয়াম কেভিল মোবাইল ফোন ব্যবহার করার ব্যাপারেও সতর্ক করেছেন।  তার মতে, হাত ধোয়ার পর ফোন পরিষ্কার না করে ব্যবহার করা উচিত নয়। পাশাপাশি কেভিল অবশ্য বলেছেন, নিজের মোবাইল নিজে ব্যবহার করলে, সেটি খুব বেশি ঝুঁকিপূর্ণ হয় না।

তবে পাবলিক টাচস্ক্রিনগুলোর ক্ষেত্রে বিষয়টি ভিন্ন। অনেক মানুষ একই সঙ্গে এটি ব্যবহার করে। সেক্ষেত্রে সংক্রমিত ব্যক্তি কয়েকদিন আগেও ভাইরাস রেখে যেতে পারে। যা কিনা অন্য সুস্থ ব্যক্তিকে তার অজ্ঞাতসারেই আক্রান্ত করতে পারে।

কেন্ট ইউনিভার্সিটির সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ . তারা স্মিথ বলেন, প্রতিদিন অনেক মানুষ টাচস্ক্রিনগুলো ব্যবহার করছে। এই জায়গাগুলো ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া জমা রাখার জন্য সহায়ক। পরে জীবাণু নতুন কারো মাঝে সংক্রমিত হয়।

. স্মিথ তাই কোম্পানিগুলোকে তাদের স্ক্রিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সুরক্ষা নীতি আরো বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। যেমন স্টেশনগুলো মুছে রাখা উচিত। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা নিশ্চিত হতে না পারি ততক্ষণ আমাদের উচিত হবে এটি এড়িয়ে চলা।

এখনো টাচস্ক্রিন ব্যবহার  করা উচিত?

ইউনিভার্সিটি অব সাউদাম্পটনের সিনিয়র রিসার্চ ফেলো মাইকেল হেড মনে করছেন, এড়িয়ে চলা সর্বোত্তম পদক্ষেপ নয়। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যের সব জায়গায় এখন টাচস্ক্রিন আছে। তাই এগুলো ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা এড়ানো কঠিন।

আর কারণে তার মতে, সবচেয়ে বাস্তবসম্মত পরামর্শ হচ্ছে বারবার হাত ধোয়া এবং পরিষ্কার করা নিশ্চিত করা। এটি সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডও (পিএইচই) বলছে, তারা টাচস্ক্রিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোনো নিদের্শনা জারি করছে না। অবশ্য তারাও সুরক্ষা নীতি জোরদার করার পক্ষে।

টাচস্ক্রিন পরিষ্কার করে ব্যবহার করা যাবে?

যদি আপনি স্ক্রিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হন এবং হাত ধোয়ার সুযোগ না থাকলে তখন এটি পরিষ্কার করা ব্যবহার করা যেতে পারে। যেমনটা আমরা মোবাইলের ক্ষেত্রে করি। যদিও মাইকেল হেড মনে করেন এটি ভালো চিন্তা না। অনেক সময় এটি পর্যাপ্ত পরিমাণে পরিষ্কার নাও হতে পারে। তাই দ্রুত হাত ধোয়াই আসল সামাধান।

ইনডিপেনডেন্ট

 

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন