শুক্রবার | জুলাই ১০, ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ার অর্থনৈতিক ক্ষতি আড়াইশ কোটি ডলার

বণিক বার্তা ডেস্ক

 নভেল করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে প্রতি সপ্তাহে আড়াইশ কোটি ডলার হারাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার অর্থনীতি। একই সঙ্গে জুন প্রান্তিকে দেশটির জিডিপির পতন হবে ১০ শতাংশ। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার তথ্য প্রকাশ করা হয়। খবর এএফপি।

কভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে বেশ সাফল্য দেখিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বর্তমানে দেশটিতে দৈনিক নতুন করে সংক্রমণের সংখ্যা কমে এসেছে। অধিকাংশ অঞ্চলে নতুন করে কেউ আক্রান্তই হচ্ছে না। কিন্তু সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রোধে নেয়া পদক্ষেপের কারণে দেশটির অর্থনীতির ওপর মারাত্মক প্রভাব পড়েছে। পরিস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়ার ট্রেজারার জশ ফ্রাইডেনবার্গ বলেন, বর্তমান বাধ্যবাধকতা যতদিন কার্যকর থাকবে ততদিন প্রতি সপ্তাহে দেশে আড়াইশ কোটি ডলার সমপরিমাণ অর্থনৈতিক কার্যক্রম হারাতে হবে। শ্রমশক্তির অংশগ্রহণ কমে যাওয়ার পাশপাশি এর মূলে রয়েছে হ্রাসপ্রাপ্ত উৎপাদন চাহিদা।

এদিকে দি অস্ট্রেলিয়ান ব্যুরো অব স্ট্যাটিস্টিকসের (এবিএস) প্রতিবেদন অনুযায়ী, এরই মধ্যে দেশটিতে চাকরি বাজারের পতন হয়েছে দশমিক শতাংশ। এর মানে হলো, এপ্রিলের ১৮ তারিখ পর্যন্ত পাঁচ সপ্তাহে কর্মক্ষম কোটি ৩০ লাখ কর্মীর মধ্যে চাকরি হারিয়েছেন প্রায় ৭০ হাজার। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন হোটেল হসপিটালিটি খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। খাতে চাকরি হারিয়েছেন প্রায় এক-তৃতীয়াংশ কর্মী। এছাড়া কলা বিনোদন খাতে চাকরি হারিয়েছেন ২৭ শতাংশ মানুষ। এর আগে নভেল করোনাভাইরাসের লকডাউনের কারণে অস্ট্রেলিয়ার বেকারত্বের হার বছরের মাঝামাঝি সময়ে দ্বিগুণ হয়ে ১০ শতাংশে দাঁড়াবে বলে পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল। এমন হলে মোট চাকরি হারাতে হবে প্রায় ১৪ লাখ মানুষকে। এছাড়া দেশটির ৩১ শতাংশ পরিবারের আর্থিক অবস্থা আরো খারাপ হবে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছিল এবিএস।

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন