বৃহস্পতিবার | ডিসেম্বর ০৩, ২০২০ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

শিল্প বাণিজ্য

বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রণোদনা নিশ্চিতে কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম ব্যুরো

করোনাভাইরাসের ঝুঁকির মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর ২৪ ঘণ্টা সচল রাখাতে বন্দর কর্মকর্তা কর্মচারী এবং নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের চট্টগ্রাম বন্দর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীদের আর্থিক প্রণোদনা দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিবেদন তৈরি করার জন্য এরই মধ্যে আট সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে । কমিটিকে আগামী ১১ মের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের পরিচালক (প্রশাসন) মমিনুর রশিদকে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটির সদস্যরা হলেন- বন্দরের উপ-সংরক্ষক ক্যাপটেন ফরিদুল আলম, পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম, প্রধান অর্থ ও হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মো.হাবিবুর রহমান, প্রধান নীরিক্ষা কর্মকর্তা মো.রফিকুল আলম, বন্দরের সচিব মো.ওমর ফারুক, বন্দর সিবিএ’র সভাপতি আবুল মনছুর আহম্মদ এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো.নায়েবুল ইসলাম ফটিক । 

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো.ওমর ফারুক এ প্রসঙ্গে বণিক বার্তাকে বলেন, এই ঝুঁকির মধ্যে কাজ করে যাচ্ছেন চট্টগ্রাম বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ।  এক মিনিটের জন্যও বন্ধ হয়নি বন্দরের অপারেশনাল কার্যক্রম । কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আর্থিক প্রণোদনা কীভাবে বা কেমন হবে তা ঠিক করতে একটি কমিটি গঠিত হয়েছে । আজ (মঙ্গলবার) এ বিষয়ে দাফতরিক আদেশ জারি করা হয়েছে ।

এর আগে প্রণোদনার বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর কর্মচারী পরিষদের (সিবিএ) পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বরাবর একটি চিঠি দেয়া হয়। চিঠিতে চারটি দাবি তুলে ধরা হয়েছে । দাবিগুলো হলো- ঝুঁকিকালীন প্রতি মাসে মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রণোদণা হিসেবে প্রদান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার অংশ হিসেবে প্রতিদিন ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত দেয়ার ব্যবস্থা করা, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী মৃত্যুবরণ করলে তার ওপর নির্ভরশীল উপযুক্ত একজন ব্যক্তিকে যোগ্যতা অনুসারে বন্দরে তাৎক্ষণিক চাকরির ব্যবস্থা করা এবং গত ১৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত বিশেষ আর্থিক প্রণোদনা (৫ লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা আর মৃত্যুবরণ করলে ৫ গুণ অর্থ) অনুসারে চট্টগ্রাম বন্দরেও তা চালু করার পদক্ষেপ নিতে হবে।

বন্দর কর্মচারী পরিষদ (সিবিএ) এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. নায়েবুল ইসলাম ফটিক বণিক বার্তাকে বলেন,বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংস্থার হাজার হাজার কর্মচারী, শ্রমিক, ট্রাক ড্রাইভার বন্দরে প্রবেশ করছে কিন্তু অপারেশনাল কার্যক্রম যাতে কোনোভাবে ব্যাঘাত না ঘটে সে জন্য এক মুহূর্তের জন্যও আমরা পিছপা হইনি । তাই আশা করছি, শ্রমিক কর্মচারীদের কোনো দিক থেকেই বঞ্চিত করা হবে না।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন

×