বৃহস্পতিবার | জুলাই ১৬, ২০২০ | ৩১ আষাঢ় ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

করোনার চিকিৎসায় ইবোলার ওষুধ ব্যবহারের অনুমতি যুক্তরাষ্ট্রের

করোনা মোকাবিলায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে আশাজাগানিয়া ওষুধ বলতে গেলে রেমডেসিভির। ইবোলার চিকিৎসায় ব্যবহৃত এ ওষুধের সর্বশেষ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফলাফল বেশ আশাব্যঞ্জক। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিসের (এনআইএআইডি) পক্ষ থেকেও এ ওষুধটির পক্ষে সুপারিশ করা হয়েছে। অবশেষে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এই অ্যান্টি ভাইরাস ড্রাগটি করোনার চিকিৎসায় ব্যবহারের আনুষ্ঠানিক অনুমতি দেয়া হলো।

এনআইএআইডি দেখেছে, এই অ্যান্টি ভাইরাল ড্রাগ প্রয়োগ করলে করোনা উপসর্গের স্থায়িত্বকাল ১৫ থেকে ১১ দিনে নেমে আসে। সারা বিশ্বের বিভিন্ন হাসপাতালের ১ হাজার ৬৩ রোগীর ওপর এ ওষুধ প্রয়োগ করে এমন ফল পাওয়া গেছে। 

এনআইএআইডির প্রধান ড. অ্যান্থনি ফাউসি বলছেন, রোগীর দ্রুত সেরে ওঠার ক্ষেত্রে রেমডেসিভিরের পরিষ্কার, উল্লেখযোগ্য, ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে।

রোগীর সেরে উঠতে সহায়তা করে রেমডেসিভির এবং এ ওষুধের কারণেই সম্ভবত অনেককে ইনটেনসিভ কেয়ার পর্যন্ত নিতে হয় না- এ তথ্য ঠিক। কিন্তু এ পরীক্ষার মাধ্যমে এটা পরিষ্কার নয় যে এ ওষুধ করোনাভাইরাসে মৃত্যু ঠেকাতে পারে কিনা।

গবেষকরা মনে করছেন, অ্যান্টি ভাইরাল ড্রাগ আক্রান্তের প্রাথমিক পর্যায়ে ভালো কাজ দেয়। আর মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছে যাওয়া রোগীর ক্ষেত্রে ভালো কার্যকর ইমিউন ড্রাগ।

এনআইএআইডি প্রধান ড. ফাউসির দাবি, আমরা বহু পরীক্ষা চালিয়ে দেখেছি, করোনা আক্রান্ত রোগীদের সারিয়ে তুলতে রেমডেসিভির প্রায় ৩১ শতাংশ বেশি দ্রুততার সঙ্গে কাজ করছে। প্রায় ১১ দিনে সুস্থ হয়ে উঠছেন অনেকে।’’ এই ওষুধ প্রয়োগে রোগীদের কোনও পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়ার শিকার হতে হয়নি বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। এই দাবিই করোনা প্রতিরোধে আশার আলো দেখায়।

আমেরিকার ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যা়ডমিনিস্ট্রেশনের (এফডিএ) তরফে জানানো হয়েছে, কভিড-১৯ আক্রান্তদের মধ্যে যাদের অবস্থা গুরুতর, যাদের রক্তে অক্সিজেনের হার ব্যাপকভাবে কমে গেছে, যাদের ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছে তাদের ওপরেই প্রথম প্রয়োগ করা হবে এই ওষুধ।

শুক্রবার এফডিএ-এর কমিশনার স্টিফেন হানকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। করোনা মোকাবিলায় এই ওযুধের ব্যবহারকে ‘খুব আশাব্যঞ্জক পরিস্থিতি’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। 

রেমডেসিভির তৈরির পেছনে রয়েছে মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা গিলিয়াড সায়েন্সেস। গিলিয়াডের সিইও ড্যানিয়েল ও’ডে বলেছেন, হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের ওপর প্রথম ব্যবহার করা হবে এটি। এই ওষুধের প্রথম ১৫ লাখ ডোজ বিনামূল্যে দেয়ার কথা আগেই ঘোষণা দিয়েছিল গিলিয়াড।

সূত্র: বিবিসি

>> করোনা চিকিৎসায় আশা জাগিয়েছে যেসব ওষুধ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন