মঙ্গলবার | জুলাই ১৪, ২০২০ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

পণ্যবাজার

চাল রফতানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল ভিয়েতনাম

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে গত মার্চে চাল রফতানি সাময়িক বন্ধ করে দিয়েছিল ভিয়েতনাম। মূলত মহামারী পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অভ্যন্তরীণ মজুদ বাড়ানোর লক্ষ্যে উদ্যোগ নেয় দেশটি। তবে গতকাল সাময়িক নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছেন ভিয়েতনামের প্রধানমন্ত্রী নুগুয়েন হুয়ান ফু। ভিয়েতনাম নিউজ এজেন্সির এক প্রতিবেদনে তথ্য জানানো হয়েছে। খবর সিনহুয়া ব্যাংকক পোস্ট।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর থেকে ভিয়েতনামিজ রফতানিকারকরা চাল রফতানিতে নতুন চুক্তি সই করা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। তবে এখন থেকে রফতানি চুক্তি সইয়ে আর কোনো বাধা রইল না। এর মধ্য দিয়ে চলতি এপ্রিলে ভিয়েতনামিজ রফতানিকারকরা সব মিলিয়ে চার লাখ টন চাল রফতানি করবেন বলে প্রত্যাশা করছে দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

ভিয়েতনামের সরকারি পূর্বাভাস অনুযায়ী, চলতি বছরের এপ্রিল-মে দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে আট লাখ টন চাল রফতানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪০ শতাংশ কম।

ভিয়েতনাম বিশ্বের তৃতীয় শীর্ষ চাল রফতানিকারক দেশ। মার্কিন কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) ফরেন এগ্রিকালচারাল সার্ভিসের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর ভিয়েতনাম থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ৭০ লাখ টন চাল রফতানি হয়েছিল, যা আগের বছরের তুলনায় দশমিক ১৯ শতাংশ বেশি। ২০১৮ সালে ভিয়েতনামিজ রফতানিকারকরা মোট ৬৮ লাখ ৫০ হাজার টন চাল রফতানি করেছিলেন। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে দেশটি থেকে খাদ্যপণ্যটির রফতানি বেড়েছে দেড় লাখ টন।

এক দশক ধরেই বছরে ৬০ লাখ টনের বেশি চাল রফতানি করে আসছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ভিয়েতনাম। এর মধ্যে ২০১১ সালে দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি চাল রফতানি হয়েছিল। ইউএসডিএর হিসাব অনুযায়ী, ওই বছর ভিয়েতনামিজ রফতানিকারকরা আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ৭৭ লাখ ১৭ হাজার টন চাল রফতানি করেছিলেন।

 

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন