মঙ্গলবার | জুন ০২, ২০২০ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

কভিড-১৯ মোকাবেলায় গুগল অ্যাপলের জোট

বণিক বার্তা ডেস্ক

বৈশ্বিক সার্চ জায়ান্ট গুগল আইফোন নির্মাতা অ্যাপল যৌথভাবে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়ে সৃষ্ট রোগ কভিড-১৯ মোকাবেলায় একটি ট্র্যাকিং সিস্টেম উন্নয়ন করছে। এর মাধ্যমে ব্লুটুথ প্রযুক্তির সহায়তায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার তথ্য ট্র্যাক করা যাবে। বৃহৎ দুই প্রযুক্তি জায়ান্ট বিভিন্ন দেশের সরকার স্বাস্থ্যসেবা সংস্থাগুলোকে সহায়তা করতে সিস্টেম উন্নয়ন করছে। খবর এপি বিজনেস ইনসাইডার।

গুগল অ্যাপলের যৌথ উদ্যোগে উন্নয়নকৃত ট্র্যাকিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড আইওএস উভয় প্লাটফর্মে কাজ করবে। এর মাধ্যমে কভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিকে শনাক্ত করা যাবে। সিস্টেমটি মে মাস নাগাদ উন্মোচন করা হতে পারে।

গুগল-অ্যাপলের এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উভয় প্রতিষ্ঠান একটি সমঝোতায় পৌঁছেছে। এর ফলে তৃতীয় পক্ষের কোনো অ্যাপ ডেভেলপার সংশ্লিষ্ট অ্যাপ উন্নয়ন করতে চাইলে অ্যান্ড্রয়েড আইফোনের প্রয়োজনীয় তথ্য তাদের সঙ্গে বিনিময় করা হবে। ট্র্যাকিং সিস্টেমের মাধ্যমে পুরো বিষয়টি মনিটর করা হবে ফোনের ব্লুটুথ প্রযুক্তি ব্যবহার করে। এতে যেসব গ্রাহক স্বেচ্ছায় অংশ নেবেন শুধু তাদের ডাটাই ব্যবহার করা হবে। এতে ব্যবহারকারীর পরিচয় গোপন রাখা হবে বলে একমত হয়েছে উভয় প্রতিষ্ঠান।

ব্লুটুথ প্রযুক্তির মাধ্যমে কভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্তের বিষয়টি কোয়ারেন্টিনে থাকা বা সংক্রমণের শিকার হওয়া স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর তথ্য শেয়ার করার ওপর নির্ভর করবে। উদ্যোগটি সফল হলে বিশ্বের কোটি কোটি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী এর আওতায় আসবে। গুগল অ্যাপল দুই সপ্তাহ ধরে বিষয়টি নিয়ে কাজ করলেও গত শুক্রবারের আগে কোনো প্রতিষ্ঠানই নিয়ে মুখ খোলেনি। গোপনীয়তা, স্বচ্ছতা সম্মতি হলো উদ্যোগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সংশ্লিষ্ট সবার মতামতের ভিত্তিতে কৌশল কাজ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে দুই প্রতিষ্ঠান। ব্লুটুথ প্রযুক্তির সহায়তায় কভিড-১৯ আক্রান্ত শনাক্তের জন্য ফোনের যেসব তথ্যের পারস্পরিক আদান-প্রদান প্রয়োজন ব্যবসায় কৌশলের অংশ হিসেবে এতদিন তা বন্ধ রাখা হয়েছিল।

বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারের গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপলের আইওএস অপারেটিং সিস্টেমের দ্বৈত আধিপত্য বিরাজ করছে। এমন একটি উদ্যোগে দুই প্রতিষ্ঠানের একজোট হওয়া খুবই জরুরি ছিল। বিশেষ কোনো কারণে গুগল অ্যাপলের জোটবদ্ধ হয়ে কাজ করার এমন নজির খুবই কম।

বিবৃতি অনুযায়ী, প্রক্রিয়ায় কোনো জিপিএস বা অবস্থাগত ডাটা বা ফোন ব্যবহারকারীকে শনাক্ত করা যায় এমন কোনো তথ্য ব্যবহার করা হবে না। আগামী মাসে বিষয়ে অ্যাপ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় প্যাকেজ, যা এপিআই নামে পরিচিত তা উন্মুক্ত করবে গুগল অ্যাপল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উদ্যোগকে সমর্থন দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। উদ্যোগটির দ্বিতীয় পর্যায়ে অ্যান্ড্রয়েড আইওএস অপরেটিং সিস্টেমের মধ্যেই প্রয়োজনীয় প্যাকেজ যোগ করা হবে। এর ফলে আলাদা কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করার প্রয়োজনীয়তা থাকবে না। এর পরও কেউ যদি তৃতীয় পক্ষীয় অ্যাপ ব্যবহার করতে চায়, সে পথও খোলা থাকবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন