শুক্রবার | জুন ০৫, ২০২০ | ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

দেশের খবর

মেহেরপুরের গাড়াডোব শঙ্কামুক্ত, যুবকের মৃত্যুতে শ্বশুরবাড়ি লকডাউন

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, মেহেরপুর

মেহেরপুরের গাংনী হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা সেই রোগীর শরীরে করোনাভাইরাস নেই। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) রোগীর শরীরের নমুনা পরীক্ষা করে কভিড-১৯ নেগেটিভ নিশ্চিত হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। ফলে তার বাড়িসহ গ্রামটিতে লকডাউন প্রত্যাহার করেছে প্রশাসন। 

অপরদিকে সদর উপজেলার কোলাগ্রামের ৩৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির শ্বাসকষ্ট নিয়ে মৃত্যু হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে পূর্বসতর্কতা স্বরূপ ওই বাড়িটি লকডাউন করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ ও প্রশাসন।

আইসোলেশনের রোগীটি সম্পর্কে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এম রিয়াজুল আলম বলেন, আইইডিসিআর থেকে ওই রোগীর শরীরের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে কোভিড-১৯ নেগেটিভ পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার দুপুরে আমরা রিপোর্ট হাতে পেয়েছি। 

এরপর রোগীর বাড়িসহ গাড়াডোব গ্রামটি থেকে লকডাউন প্রত্যাহার করেছে প্রশাসন। বিষয়টি নিশ্চিত করে গাংনী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দিলারা রহমান বলেন, নমুনা পরীক্ষা রিপোর্টে আমরা স্বস্তি পেয়েছি। স্বাস্থ্য বিভাগের পরামর্শে লক ডাউন প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

গাড়াডোব গ্রামের ৫২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি কয়েকদিন ধরে জ্বর, হাঁপানি ও সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন। করোনা আক্রান্ত সন্দেহে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে গত মঙ্গলবার রাতে তাকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরের দিন তাকে আইসোলেশন সেন্টারে নেয়া হয় এবং নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠায় স্বাস্থ্য বিভাগ। একই সঙ্গে গ্রামটি লকডাউন করা হয়।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে শ্বাসকষ্ট নিয়ে মেহেরপুর সদর উপজেলার কোলাগ্রামের ৩৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। 

মেহেরপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অলোক কুমার দাস বলেন, শ্বাসকষ্টে তার মৃত্যু হয়েছে। করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে সন্দেহে তার শ্বশুরবাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এখন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই ব্যক্তি নৌবাহিনীতে চাকরি করেন। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গার জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলায়। পরিবারসহ ছুটি কাটাতে ৫/৬ দিন আগে মেহেরপুরের কোলাগ্রামে শ্বশুরবাড়ি এসেছিলেন। সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বুধবার তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তার মৃত্যু হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন