রবিবার | মে ৩১, ২০২০ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

শেয়ারবাজার

দর কমার শীর্ষে বিএসআরএম লিমিটেড

নিজস্ব প্রতিবেদক

গত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সবচেয়ে বেশি দর কমেছে প্রকৌশল খাতের কোম্পানি বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলস (বিএসআরএম) লিমিটেডের। চার কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর দশমিক ৫৫ শতাংশ কমেছে। ডিএসইতে গত সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ার ৫৩ টাকা ৮০ পয়সা থেকে ৫৪ টাকার মধ্যে লেনদেন হয়েছে।

ডিএসইতে চার কার্যদিবসে বিএসআরএম লিমিটেডের কোটি লাখ ১০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গড়ে প্রতিদিন কোম্পানিটির ৫২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

সর্বশেষ রেটিং অনুযায়ী, বিএসআরএমের ঋণমান দীর্ঘমেয়াদে ডাবল স্বল্পমেয়াদে এসটি টু ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রাসঙ্গিক অন্যান্য তথ্যের ভিত্তিতে প্রত্যয়ন করেছে ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশন সার্ভিসেস লিমিটেড (সিআরআইএসএল)

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে বিএসআরএম। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির সম্মিলিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে টাকা ৮৮ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ১১ টাকা ৭৭ পয়সা। ৩০ জুন সম্মিলিতভাবে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৯৭ টাকা ৪৬ পয়সা, এক বছর আগে যা ছিল ৬৩ টাকা ৭০ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জুলাই-ডিসেম্বর) কোম্পানিটির সম্মিলিত ইপিএস হয়েছে টাকা ৫৩ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা ৬১ পয়সা। দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) সম্মিলিত ইপিএস হয়েছে ৫১ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর কোম্পানিটির সম্মিলিত এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৯৭ টাকা ৫৪ পয়সা।

২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদের পাশাপাশি ১০ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ পেয়েছিলেন কোম্পানির শেয়ারহোল্ডাররা।

ডিএসইতে ২৫ মার্চ বিএসআরএম লিমিটেডের শেয়ার সর্বশেষ ৫৪ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। সমাপনী দর ছিল ৫৪ টাকা। এক বছরে শেয়ারটির সর্বনিম্ন সর্বোচ্চ দর ছিল ৪৪ টাকা ৫০ পয়সা ৭৩ টাকা ৭০ পয়সা।

২০১৫ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ২৩৬ কোটি লাখ ৮০ হাজার টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪০ দশমিক ৯৭ শতাংশ রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের হাতে। এছাড়া ১৯ দশমিক ৭৮ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, ১৭ দশমিক শূন্য শতাংশ বিদেশী বিনিয়োগকারী বাকি ২২ দশমিক শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন