বুধবার | মে ২৭, ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

দেশের খবর

কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়া পাচ্ছেন ইতালিফেরত ৩৬ বাংলাদেশী

বণিক বার্তা প্রতিনিধি গাজীপুর

শরীরে নভেল করোনাভাইরাস না থাকায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়া পাচ্ছেন ইতালিফেরত ৩৬ বাংলাদেশী। আজ গাজীপুরের পুবাইল এলাকার মেঘডুবি ২০ শয্যাবিশিষ্ট মা শিশুকল্যাণ কেন্দ্র থেকে ছাড়া পাবেন তারা। হাসপাতালে টানা ১৬ দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন তারা। দেশে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে বাড়ি ফেরার ঘটনা এটিই প্রথম।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম জানান, করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে ইতালিফেরত ৪৪ জন বাংলাদেশীকে বিমানবন্দর থেকে ১৪ মার্চ মধ্যরাতে গাজীপুরের পুবাইল এলাকার মেঘডুবি ২০ শয্যাবিশিষ্ট মা শিশুকল্যাণ কেন্দ্র হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু এদের মধ্যে আটজনের দেহে অস্বাভাবিক তাপমাত্রা থাকায় তাদের অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য দুই দফায় রাজধানী উত্তরার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে অধিকতর পর্যবেক্ষণ পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ওই আটজনের মধ্যে একজনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আইসোলেশনে এবং বাকি সাতজনকে ঢাকা থেকে কাপাসিয়ার পাবুর ১০ শয্যাবিশিষ্ট মা শিশুকল্যাণ কেন্দ্রে স্থানান্তর করা হয়। কেন্দ্রে আরো দুজনসহ মোট নয়জন বর্তমানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন।

গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুজ্জামান জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই ব্যক্তি যেহেতু গাজীপুরের মেঘডুবি মা শিশু হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন, তাই হাসপাতালে অবস্থানরত বাকি ৩৬ জনকে দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে সেখানে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। ১৬ দিন কোয়ারেন্টিনে রেখে পরীক্ষা-নিরীক্ষা পর্যবেক্ষণে ইতালিফেরত ওই ৩৬ জনের দেহে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। তাই আজ সকালে মেঘডুবি মা শিশুকল্যাণ কেন্দ্র তাদের ছাড়পত্র দিয়েছে। তবে কাপাসিয়ার পাবুর মা শিশুকল্যাণ কেন্দ্রে থাকা অন্য নয়জনকে আরো প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম জানান, গাজীপুরের মেঘডুবি কেন্দ্র থেকে ইতালিফেরত ওই ৩৬ জনকে ছাড়পত্র দিয়ে আজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হবে। দেশে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে বাড়ি ফেরার এটিই প্রথম ঘটনা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন