বুধবার | মে ২৭, ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

টকিজ

কভিড-১৯ নিয়ে একত্র হলেন কন্ট্যাজিয়নের তারকারা

ফিচার ডেস্ক

কন্ট্যাজিয়ন সিনেমার তারকা ম্যাট ড্যামন, কেট উইন্সলেট, লরেন্স ফিশবার্ন জেনিফার এহলে সম্প্রতি কভিড-১৯ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করার জন্য একত্র হয়েছেন।

লরেন্স ফিশবার্ন, কেট উইন্সলেট জেনিফার এহলে কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মেলম্যান স্কুল অব পাবলিক হেলথের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে একত্র হয়ে নিজেদের ঘরে বসে চারটি ভিডিও তৈরি করেছেন।

স্টিভেন সডারবার্গ পরিচালিত ভাইরাস থ্রিলার সিনেমা কন্ট্যাজিয়ন ২০১১ সালে মুক্তি পায়। একটি প্রাণঘাতী সংক্রামক ইনফ্লুয়েঞ্জার বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ার কাহিনী দেখানো হয়েছিল সিনেমাটিতে।

ম্যাট ড্যামন কন্ট্যাজিয়ন ছবিতে এমন একটি চরিত্রে ছিলেন, যার শরীর সেই কল্পিত ভাইরাসের বিপক্ষে প্রতিরোধী ছিল। তিনি বলেন, কন্ট্যাজিয়ন একটি সিনেমা ছিল। আর এটা বাস্তব। আমি বা আপনি কেউই কভিড-১৯ প্রতিরোধী না। তিনি সবাইকে বিশেষজ্ঞদের কথা মানতে এবং ছয় ফিট দূরত্ব বজায় রাখতে আহ্বান জানান।

কেট উইন্সলেট সবাইকে ভালো করে হাত ধোয়ার জন্য পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে হয়তো আপনাদের হাত ধোয়ার ওপর আপনাদের জীবন নির্ভর করছে। কেট বারবার হাত ধোয়ার কথা বলেন।

এহলে জোর দিয়ে বলেন, প্রত্যেকেরই বয়স বা জাতি নির্বিশেষে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

যেসব চিকিৎসক করোনাভাইরাসটি মোকাবেলায় কাজ করছেন সবাইকে তাদের সাহায্য করার আবেদন জানান লরেন্স ফিশবার্ন। ভাইরাসটির দ্রুত বিস্তার রোধে তিনি সবাইকে চিকিৎসকদের কথা মেনে চলতে বলেন। তার মতে, সবাই একত্র হয়ে নিয়মগুলো মেনে চললে চিকিৎসক নার্সরা ভাইরাসটির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার শক্তি পাবেন।

করোনাভাইরাসটি বেশির ভাগ মানুষের ক্ষেত্রে হালকা বা মাঝারি উপসর্গের কারণ হয়, যেমন জ্বর কাশি, যা দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে ভালো হয়ে যায়। কিন্তু কারো কারো কাছে, বিশেষ করে বয়স্ক অসুস্থ ব্যক্তিদের জন্য এটি মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হতে পারে।

 

সূত্র: হাফপোস্ট

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন