বুধবার | মে ২৭, ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

করোনা মোকাবেলায় নেপালে বেসরকারি খাতের অনুদান ২০ কোটি রুপি

বণিক বার্তা অনলাইন

নভেল করোনাভাইরাস সৃষ্ট কভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় নেপালে বেসরকারি খাতের অংশগ্রহণ বাড়ছে। সরকার এ সংক্রান্ত একটি তববিল গঠন করেছে। সেই তহবিলে গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত বেসরকারি খাত থেকে অনুদান এসেছে ২০ কোটি রুপি। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ কার্যালয় থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে সরকারের পক্ষ থেকে ৫০ কোটি রুপির তহবিল গঠনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বেসরকারি খাত থেকে ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেলেও সরকারের পক্ষ থেকে এখনো তহবিলের অ্যাকাউন্টে ওই ৫০ কোপি রুপি জমা দেয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ কার্যালয়ের (ওপিএমসিএম) যুগ্মসচিব রাজেন্দ্র কুমার পৌড়েল বলেছেন, সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিশ্রুত ৫০ কোটি রুপি এখনো তহবিলে জমা হয়নি। তবে বেসরকারি খাত থেকে এখন পর্যন্ত ১৫ কোটি পাওয়া গেছে। আরো ৫ কোটি রুপির চেক ক্লিয়ারেন্সের প্রক্রিয়া চলছে। আজ (শুক্রবার) পর্যন্ত সব মিলিয়ে বেসরকারি খাত থেকে পাওয়া গেছে ২০ কোটি রুপি।

সরকার তহবিল সংগ্রহ ও বণ্টনের একটি গাইডলাইনও তৈরি করেছে বলে জানা গেছে। গাইডলাইন অনুযায়ী করোনাভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধের যেসব সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা কাজ করবে তাদের এ তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে। এমনকি বেসরকারি হাসপাতালসহ বেসরকারি খাতের যেসব প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা কাজ করবে তারাও বরাদ্দ পাবে। তবে এর জন্য তাদের সরকারের কাছে আবেদন করতে হবে।

যুগ্মসচিব রাজেন্দ্র কুমার বলেন, করোনা তহবিলের জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতেই গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে। এ গাইডলাইন অনুযায়ী করোনা বিস্তার রোধে যেই কাজ করার জন্য অর্থ ও অন্যান্য সহায়তা চাইবে তাকেই এ তহবিল থেকে সহায়তা করবে সরকার। বেসরকারি খাত, কেন্দ্রীয় সরকার, প্রাদেশিক সরকার এবং স্থানীয় সরকারও এখান থেকে বরাদ্দ পেতে পারে।

বেসরকারি খাতের মধ্যে একাধিক করপোরেট প্রতিষ্ঠান সরকারের করোনা তহবিলে মোটা অংকের অর্থ দিয়েছে বলে জানা গেছে। করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে নেপালের মোবাইল অপারেটর কোম্পানি এনসেল (আজিয়াটা গ্রুপ পরিচালিত) এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি অর্থ সহায়তা দিয়েছে। তারা এরই মধ্যে ১০ কোটি রুপি চেক হস্তান্তর করেছে।
এছাড়া হিমালয়ান ব্যাংক, গ্লোবাল আইএমই ব্যাংক, নেপাল ব্যাংক, লক্ষ্মী গ্রুপ, ভাটভাটেনি সুপারমার্কেট এবং কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকসহ আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান তহবিলে অর্থ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিশাল গ্রুপ ১ কোটি রুপি সমমূল্যের সুরক্ষা সরঞ্জাম যেমন, এন৯৫ মাস্ক, স্যানিটাইজার, পিপিই এবং ইনফ্রারেড থার্মোমিটার ইত্যাদি দেবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

তবে ব্যক্তিগত বা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে এ ধরনের তহবিল গঠনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার।

সূত্র: হিমালয়ান টাইমস

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন