রবিবার| এপ্রিল ০৫, ২০২০| ২১চৈত্র১৪২৬

খবর

প্রতিনিধিরা সার্বক্ষণিক জনগণের পাশে থেকে কাজ করছেন —স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জনপ্রতিনিধিরা সার্বক্ষণিক জনগণের পাশে থেকে কাজ করছেন বলে জানালেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। খবর বাসস।

তাজুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় আমরা যে যার অবস্থান থেকে যা যা করণীয় করছি। আমাদের মেম্বার, চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর, মেয়ররা সার্বক্ষণিক জনগণের পাশে আছেন। আমরা সবাই আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছি বলে বাংলাদেশ ঘনবসতিপূর্ণ দেশ হওয়া সত্ত্বেও অন্যান্য দেশের তুলনায় করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আছে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী গতকাল জীবাণুনাশক ছিটানো কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান। বেলা সাড়ে ১১টায় মিরপুর ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পাশের প্রধান সড়ক থেকে জীবাণুনাশক ছিটানোর কাজ শুরু হয়।

সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র মো. জামাল মোস্তফাসহ সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইউনিয়ন গ্রাম পর্যায়ে প্রবাসীরা ঘুরে বেড়াচ্ছেন, এছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে বিপুলসংখ্যক মানুষ গ্রামে গেছে। মুহূর্তে স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা কাজ করছেন কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তাজুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে শুরু করে প্রতিটি ওয়ার্ড, পৌরসভা, সিটি করপোরেশনে আমাদের কমিটি গঠন করা আছে। তারা কাজ করছে। প্রবাসীদের কমপক্ষে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে তারা স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় কাজ করছে।

তিনি আরো বলেন, প্রথম দিকে একটু সমস্যা হলেও এখন মনিটরিং ব্যবস্থার উন্নতি হয়েছে, আবার প্রবাসীরাও বুঝতে সক্ষম হয়েছেন আর গ্রামবাসীও অবগত হয়েছে। তাই আগের চেয়ে এখন বেশি কার্যকর হয়েছে।

সময় স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের পাশাপাশি ডেঙ্গু প্রতিরোধেও মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

নবনির্বাচিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা এবার তত্পর আছি, আমাদের ওষুধের সমস্যা নেই, জনবলের সমস্যা নেই। প্রয়োজন মনিটরিং। মশক নিধন কর্মীদের সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ওষুধ ছিটানোর কথা, সে কাজ অনেক জায়গায়ই হচ্ছে না। এজন্য কাউন্সিলরদের নির্দেশনা দিয়েছি। পাশাপাশি প্রতিটি এলাকার সাধারণ জনগণকে বলব আপনারা মনিটরিং করুন, আমাদের জানান।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন