মঙ্গলবার| এপ্রিল ০৭, ২০২০| ২২চৈত্র১৪২৬

দেশের খবর

চার জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে আরো ৪৩৭ জন

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের চার জেলায় ৪৩৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে কুড়িগ্রামে ৩১০, বাগেরহাটে ৬৯, সুনামগঞ্জে ৫৬ ঝালকাঠিতে দুজন রয়েছেন।

কুড়িগ্রাম: জেলায় ২০ প্রবাসীসহ ৩১০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রেখেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

গতকাল কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, বিদেশফেরত যাদের তালিকা পাওয়া গেছে, তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা সবার শারীরিক অবস্থা ভালো।

এদিকে সরকারি নির্দেশনা মেনে যেসব শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পড়েছেন, তাদের জন্য জেলায় ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম। এছাড়া দুস্থদের জন্য সরকারের যে নিয়মিত সহযোগিতা রয়েছে তা প্রদান হবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের জন্য ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা জেলার নয় উপজেলায় তালিকা তৈরি করে বিতরণ করা হবে। 

বাগেরহাট: জেলায় নতুন করে আরো ৬৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রেখেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। নিয়ে হাজার ২৯৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হলো।

সুনামগঞ্জ: গত ২৪ ঘণ্টায় সুনামগঞ্জে বিভিন্ন উপজেলায় নতুন করে আরো ৫৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। নিয়ে জেলায় মোট ৫০৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এছাড়া হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার মেয়াদ শেষ হওয়ায় ১৩০ জনকে ছাড়পত্র দিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। 

গতকাল দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামছুদ্দিন আহমেদ। তিনি জানান, বিদেশফেরত ৫০৬ যাত্রীকে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। এছাড়া ১৩০ জনকে ছাড়পত্র দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

ঝালকাঠি: জেলায় নতুন করে আরো দুই বিদেশফেরত ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। নিয়ে জেলায় মোট ১২৫ জন বিদেশফেরত ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হলো। এছাড়া ১৪ দিন পূর্ণ হওয়ায় ৫৮ জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। ঝালকাঠি সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হালদার তথ্য জানিয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন