বৃহস্পতিবার | অক্টোবর ০১, ২০২০ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

শ্রমিক ঘাটতিতে ফসল নিয়ে উদ্বেগে ইউরোপের চাষীরা

বণিক বার্তা ডেস্ক

যেমন করেই খাওয়া হোক না কেন জার্মানির বসন্ত মানেই অ্যাসপ্যারাগাস কিন্তু চলতি বছর অনেকের পাতেই জনপ্রিয় সবজিটি বিরল হয়ে উঠতে পারে এর অন্যতম কারণ সাধারণত ফসল তুলতে যে বিদেশী শ্রমিকরা আসতেন, নভেল করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে আরোপিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় তাদের সিংহভাগই জার্মানিতে প্রবেশ করতে পারছেন না

সাদা অ্যাসপ্যারাগাস চাষের জন্য সুপরিচিত ব্রান্ডেনবুর্গের বেলিত্জ শহরে সবজি খামার রয়েছে চাষী থমাস সিরিংয়ের তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি আমাদের মতো চাষীদের জন্য ভীষণ উদ্বেগজনক মুহূর্তে সিরিংয়ের মতো শত শত চাষী শ্রমিক ঘাটতির কারণে মাঠেই ফসল পচে যাওয়ার হুমকিতে রয়েছেন

আবহাওয়া আরো উষ্ণ হয়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে ইউরোপজুড়ে চাষীদের উদ্বেগ বাড়ছে চাষীদের কভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে আরোপিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার মধ্যে শ্রমিক ঘাটতি পূরণ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে

স্বাভাবিক মৌসুমগুলোয় সিরিংয়ের খামারে রোমানিয়া, পোল্যান্ড বুলগেরিয়া থেকে অন্তত ৬০ জন বিদেশী শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয় বর্তমানে সংখ্যা কেবল ১০- দাঁড়িয়েছে সিরিং বলেন, মুহূর্তে আবহাওয়া আবারো ঠাণ্ডা থাকায় অ্যাসপ্যারাগাস ধীরে ধীরে বাড়বে কিন্তু এক সপ্তাহের মধ্যেই এগুলো মাটি থেকে বের হয়ে আসবে আর দ্রুত বাড়তে থাকবে

বেলিেজর অ্যাসপ্যারাগাস চাষীদের একটি সংঘের সদস্য জুর্হেন জ্যাকব বলেন, চলতি বছর এখন পর্যন্ত প্রয়োজনের মাত্র অর্ধেক মৌসুমি শ্রমিক অঞ্চলটিতে পৌঁছেছে সাধারণত পাঁচ হাজার মৌসুমি শ্রমিক সময় ভিড় করেন

জার্মান ফারমারস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক উদো হেমারলিং বলেন, রোমানিয়া পোল্যান্ড থেকে শ্রমিকরা ঠিক কীভাবে জার্মানিতে প্রবেশ করবেন, সে বিষয়টি দ্রুত স্পষ্ট করা প্রয়োজন

উল্লেখ্য, প্রতি বছর প্রায় তিন লাখ মৌসুমি শ্রমিক জার্মানিতে আসেন, যাদের সিংহভাগই পোল্যান্ড রোমানিয়ার নাগরিক খামারগুলোয় ফল সবজি তোলায় সহায়তা করে থাকেন এসব শ্রমিক

জার্মানির মতো শ্রমিক ঘাটতিতে রয়েছে অস্ট্রিয়া মুহূর্তে দেশটিতে ফল সবজি খামারগুলোয় পাঁচ হাজার শ্রমিক সংকট রয়েছে পরিস্থিতিতে সহায়তা পেতে অন্য খাতের কর্মীদের নিবন্ধনের জন্য একটি ওয়েবসাইট চালু করেছে মন্ত্রণালয়

সুইজারল্যান্ডে শ্রমিক সংকট নিয়ে উদ্বেগ ক্রমান্বয়ে বাড়ছে চলতি বছর দেশটিতে প্রয়োজনীয় বার্ষিক ৩৩ হাজার মৌসুমি শ্রমিকের মাত্র ক্ষুদ্র একটি অংশ পৌঁছেছে

জার্মানির কৃষিমন্ত্রী জুলিয়া ক্লোকনার বলেন, ইউরোপের বৃহত্তর অর্থনীতিটির কেবল মার্চেই ৩০ হাজার মৌসুমি শ্রমিক প্রয়োজন মে পর্যন্ত সংখ্যা বেড়ে ৮৫ হাজারে দাঁড়াবে বিপুল পরিমাণ শ্রমিক ঘাটতি পূরণের জন্য মহামারীর কারণে যেসব কর্মী আকস্মিকভাবে বেকার হয়ে পড়েছেন, তিনি তাদের খামারগুলোয় নিয়োগ দেয়ার সুপারিশ করেছেন

এদিকে মৌসুমি শ্রমিকদের দীর্ঘ সময়ের জন্য কাজের অনুমোদন অন্যান্য খাত থেকে সাময়িকভাবে কর্মী নিয়োগের প্রতিবন্ধকতা শিথিলসহ চাষীদের সহায়তায় পদক্ষেপ গ্রহণে সম্মতি দিয়েছে জার্মানির মন্ত্রিপরিষদ তবে চাষীরা বিদেশ থেকে আসা অভিজ্ঞ শ্রমিকদের নিয়ে আসাতে বেশি আগ্রহী

ইউরোপীয় দেশগুলোর স্থল ট্রানজিট বন্ধ থাকায় অনেকেই চার্টার্ড ফ্লাইটের মাধ্যমে শ্রমিকদের নিয়ে এসেছেন এসব শ্রমিকের বৈধ ওয়ার্ক পারমিট থাকলেও অনেকেরই প্রবেশের অনুমোদন নেই তবে আরো নানা পন্থায় শ্রমিক আনার কথা ভাবছেন চাষীরা  এএফপি

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন