মঙ্গলবার| এপ্রিল ০৭, ২০২০| ২২চৈত্র১৪২৬

দুর্দম

১৯৯১ সালের দুর্যোগের পর

কিউ আর ইসলাম

 বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়, সেই সঙ্গে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি জলোচ্ছ্বাস উভয় মিলে ১৯৯১ সালের এপ্রিলে বাংলাদেশের দক্ষিণে উপকূলীয় অঞ্চলে অপরিমেয় ক্ষতি সাধন করে আশির দশকে ঘূর্ণিঝড় দেশজুড়ে বন্যায় বিপুল ক্ষয়ক্ষতি ভোগান্তির পরও দুর্যোগ মোকাবেলায় তেমন কোনো কর্মসূচি নেয়া হয় না সাইক্লোন শেল্টার বা ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রের সংখ্যা চাহিদার তুলনায় একেবারেই অপর্যাপ্ত থাকে পূর্বপ্রস্তুতির অভাবে ১৯৯১ সালের গ্রীষ্ম মৌসুমের শুরুতে আকস্মিক ভয়াবহ ওই দুর্যোগে লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়  বসতি এলাকায় অধিকাংশ ঘড়বাড়ি ভেঙে পড়ে লাখ লাখ মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে বাধ্য হয় অসংখ্য গবাদি পশুর প্রাণহানি হয় মত্স্যসম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয় অজস্র গাছ উপড়ে যায় চার লাখ মেট্রিক টনের কাছাকাছি ফসল বিনষ্ট হয় সড়ক রাস্তাবন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ এবং অন্যান্য অবকাঠামো বিনষ্ট হয় চট্টগ্রামে স্যাটেলাইট সিস্টেম ভেঙে পড়ায় বহির্বিশ্বে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে রাজধানীর সঙ্গে সঙ্গে উপকূলীয় জেলাগুলোর সঙ্গে টেলিফোন সংযোগ অকার্যকর হয়ে পড়ে সব মিলিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ ধ্বংস হয়ে যায় দীর্ঘকাল স্বৈরশাসনের অবসান হয়ে দেশে বড় রকমের এক রাজনৈতিক পরিবর্তনের পর পরই সংঘটিত দুর্যোগ অর্থনীতিকে পর্যুদস্ত করে দেয় সংকট মোকাবেলা করে সদ্য নির্বাচিত নতুন গণতান্ত্রিক সরকারের সামনে অর্থনৈতিক পরিস্থিতির উন্নতি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায় ত্বরিত ব্যবস্থা গ্রহণে অপারগ হলেও সরকার অবশ্য দৃঢ়তার সঙ্গে সংকট মোকাবেলা করতে এগিয়ে যায়

সরকার ইমার্জেন্সি রিলিফ বা জরুরি ত্রাণ কমিটি গঠন করে প্রধানমন্ত্রী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে উপকূলীয় এলাকা পরিদর্শন করেন ত্রাণসামগ্রী বিতরণে সেনাবাহিনী নিয়োজিত হয় সরকার আন্তর্জাতিক সহায়তার জন্য আহ্বান করে বিদেশ থেকে ত্রাণসামগ্রী আসতে শুরু করে বিদেশ থেকে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিরা পর্যবেক্ষণে আসতে থাকে  আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সঙ্গে সরকারের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ স্থাপিত হয় ত্রাণমন্ত্রীকে মুখ্য সমন্বয়ক করে রাষ্ট্রপতির দুর্যোগ মনিটরিং সেলকে সক্রিয় করে তোলা হয় হেলিকপ্টারের সাহায্যে খাদ্য ওষুধ এয়ারড্রপ করা হতে থাকে দ্রুত ত্রাণসামগ্রী পৌঁছতে অর্থ বরাদ্দ করা হয় সব অধিদপ্তরকে ক্ষয়ক্ষতির ওপর তথ্য সংগ্রহ ত্রাণকাজে সহায়তার নির্দেশ দেয়া হয় কাজে সেনাবাহিনীও সাহায্যে এগিয়ে আসে জাতিসংঘের মহাসচিব পেরেজ দে কুইলার আন্তর্জাতিক মহলকে উদারতার সঙ্গে সাড়া দিতে আহ্বান করেন তিনি ঘূর্ণিঝড়ে প্রাণহানি, অবকাঠামো বিনষ্ট ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির জন্য বাংলাদেশের জনগণ সরকারকে তারা গভীর সমবেদনা জানান জাতিসংঘের ডিজাস্টার রিলিফ কো-অর্ডিনেটর এম এস্যাফি পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য বাংলাদেশে আসেন এদিকে প্রধানমন্ত্রী জরুরি তহবিল গঠন করে সব সরকারি অধিদপ্তরকে ক্রাণকাজে সহায়তার নির্দেশ দেন দুর্যোগ এলাকায় প্রায় আটশত মেডিকেল টিম পাঠানো হয় প্রতি টিমে দুজন মেডিকেল অফিসার, তিনজন প্যারামেডিকস এবং একজন টেকনিশিয়ান অন্তর্ভুক্ত করা হয় এই সঙ্গে শতাধিক সেনা মেডিকেল টিমও নিয়োজিত হয় বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংগঠন, প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক শিক্ষার্থী, সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা ব্যক্তিগতভাবে নানা উপায়ে সাহায্য করতে থাকে

দুর্যোগ এলাকায় দ্রুত খাবার পানি শুষ্ক খাদ্য পৌঁছার ব্যবস্থা করা হয় ডায়রিয়া, ডিসেন্ট্রি অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ইনফেকশনে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকায় অ্যান্টিবায়োটিক ইন্ট্রাভেনাস ফ্লুইডস সরবরাহের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় পর্যাপ্তসংখ্যক যোগ্যতাসম্পন্ন চিকিৎসা কর্মী থাকায় দাতাদের বিদেশী মেডিকেল টিম পাঠাতে নিরুৎসাহিত করা হয় তাছড়া বিদেশী চিকিৎসক চিকিৎসা কর্মীদের জন্য স্থানীয়ভাবে বাসস্থান, নিরাপত্তা অনুবাদক পেতে নিশ্চয়তা দেয়া দুরূহ হয়ে পড়ে সংগৃহীত তথ্য পর্যালোচনার ভিত্তিতে ত্রাণসামগ্রী চাহিদা নির্ধারণ করা হতে থাকে ত্রাণসামগ্রীর প্যাকিং লিস্ট ইংরেজিতে লেখার অনুরোধ করা হয় যাতে সরবরাহ প্রক্রিয়ায় বিঘ্ন বা বিলম্ব না হয় ফসলের বীজ, সার, কৃষি যন্ত্রপাতি, চট্টগ্রামে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুদামঘর মেরামত, গবাদি পশুর খাদ্য সরবরাহ চিকিৎসা, ক্ষতিগ্রস্ত টিউবওয়েল মেরামত, মোমবাতি, হারিকেন কেরোসিন সরবরাহ, পণ্য পরিবহনে ভর্তুকি প্রদান, চট্টগ্রাম বন্দরে ডুবন্ত জাহাজ উদ্ধার গ্যাসলাইন মেরামতকে অগ্রাধিকার দেয়া হয় বিভিন্ন এনজিওর উদ্যোগে এবং স্থানীয় সহযোগিতায় দুই হাজারের ওপর টিউবওয়েল মেরামত করে পুনরায় চালু করা হয় চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানামায় প্রতিবন্ধকতা দূর করায় স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসে ঢাকা বহির্বিশ্বের সঙ্গে টেলেক্স টেলিযোগাযোগ যথাসম্ভব পুনঃস্থাপিত হয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সভায় দাতা প্রতিনিধি, জাতিসংঘ সংস্থা এনজিওগুলোর সঙ্গে সার্বিক পরিস্থিতির ওপর পর্যালোচনা করতে থাকেন 

সংশোধিত বাজেট অনুযায়ী ১৯৯১-৯২ অর্থবছরে সরকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি ব্যয় পূর্ববর্তী বছরের তুলনায় প্রায় ১৭ শতাংশ বৃদ্ধি করে উপকূলীয় বন্যা নিয়ন্ত্রণ পানিসম্পদ খাতে ব্যয় বৃদ্ধি করা হয় পরবর্তী সময়ে নদীর প্রবাহ বৃদ্ধির ওপর দৃষ্টি দেয়া হয় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে ব্যয় বৃদ্ধি হয় ৩৭ শতাংশ কৃষি উন্নয়নে প্রায় ১০ শতাংশ ব্যয় বৃদ্ধি পায় বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি ব্যয় নব্বই দশকের মাঝামাঝি ৮০ শতাংশ বৃদ্ধি পায় একই সময়ে গ্রামীণ অবকাঠামো কৃষি উন্নয়নে বৃদ্ধি পায় যথাক্রমে ৮৪ ৩৭ শতাংশ পরবর্তী নির্বাচিত সরকার ব্যবস্থা অব্যাহত রাখে উপকূলীয় অঞ্চলে ১৯৯৭ সালের মধ্যে দুই হাজারের কাছাকাছি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মিত হয় খাদ্য উৎপাদন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বৃদ্ধি পেতে থাকে উল্লেখ্য, ১৯৯১-৯২ সালে পূর্ববর্তী বছরের তুলনায় বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলায় প্রায় এক লাখ টন বেশি চাল উৎপাদিত হয় কৃষি খাতে প্রবৃদ্ধির হার ১৯৯০-৯১ অর্থবছরে দশমিক ২৩ শতাংশ থেকে ১৯৯৫-৯৬ অর্থবছরে শতাংশের ওপর বৃদ্ধি পেয়ে ওই দশকের শেষে দশমিক ১৪ শতাংশ পৌঁছে একই সময়ে শিল্প খাতে দশমিক ৫৭ শতাংশ থেকে দশমিক ৪৫ শতাংশ এবং সেবা খাতে দশমিক ২৪ শতাংশ থেকে দশমিক ৫৩ শতাংশে উন্নীত হয় দেশজ উৎপাদন বা জিডিপি প্রবৃদ্ধি হার দশমিক ২৪ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে দশমিক ৪১ শতাংশ চলে আসে বেসরকারি বিনিয়োগ কয়েক গুণ বৃদ্ধি পায় এসব পরিবর্তন দেশের আর্থসামাজিক  উন্নয়ন দারিদ্র্য বিমোচনে বড় ধরনের প্রভাব রাখে পারিবারিক আয় নব্বই শতকের মাঝামাঝি ১৯৯১-৯২ অর্থবছরের তুলনায় জাতীয় পর্যায়ে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ, গ্রামে ১৭ শতাংশের ওপর দুই-তৃতীয়াংশ বৃদ্ধি পায় খাদ্য বাবদ পারিবারিক ব্যয় জাতীয় পর্যায়ে বৃদ্ধি পায় ২০ শতাংশের ওপর এবং গ্রামে শহরে যথাক্রমে ১৫ ৩৮ শতাংশের কাছাকাছি উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড় থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা পরবর্তীকালে দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুতি গ্রহণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতি কমাতে সহায়ক হয় বিশেষ করে পরিকল্পনা প্রণয়ন, প্রাতিষ্ঠানিক সামর্থ্য জোরদারকরণ এবং দুর্যোগ-পরবর্তী প্রশমন উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রহণে সহায়ক হয় পরবর্তী সময়ে দুর্যোগকবলিত হলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে সামর্থ্য অর্জনে সক্ষম হয়

 

কিউ আর ইসলাম: উন্নয়ন গবেষক

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন