রবিবার | সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ | ১২ আশ্বিন ১৪২৭

শিল্প বাণিজ্য

বিজিএমইএ সভাপতিকে জার্মান মন্ত্রীর আশ্বাস

জরুরি চিকিৎসা সুরক্ষা পোশাকের ক্রয়াদেশ পাবে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

 করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী যার প্রভাবে স্বাভাবিক জীবনযাপন সবচেয়ে বেশি ব্যাহত হয়েছে পশ্চিমা দেশগুলোর ভোক্তাদের কমে গেছে বস্ত্রের মতো মৌলিক পণ্য কেনার চাহিদা তবে জরুরি অবস্থার প্রেক্ষাপটে চাহিদা বেড়েছে বিশেষায়িত পণ্যের, যেমন চিকিৎসা সুরক্ষা পোশাকের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ জরুরি চিকিৎসা সুরক্ষা পোশাকের ক্রয়াদেশ পাবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন জার্মান সরকারের প্রতিনিধি 

গত ২২ মার্চ রাতে জার্মানির অর্থনৈতিক সহযোগিতা উন্নয়নবিষয়ক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গার্ড মুলারকে এক -মেইল বার্তা পাঠান পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি . রুবানা হক সেখানে জার্মানিসহ রফতানি গন্তব্যগুলো থেকে ধারাবাহিকভাবে বাংলাদেশের ক্রয়াদেশ বাতিলের পরিস্থিতি তুলে ধরেন তিনি পাশাপাশি জার্মানির ক্রেতাপ্রতিষ্ঠানগুলো যেন ক্রয়াদেশ বাতিল না করে, সে বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের তাগিদ জানান সভাপতির সেই -মেইলের জবাবে জার্মান মন্ত্রী বাংলাদেশ জরুরি চিকিৎসা সুরক্ষা পোশাকের ক্রয়াদেশ পাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন

২৪ মার্চ . রুবানা হককে -মেইলের জবাব দেন গার্ড মুলার বাংলাদেশ জার্মানির টেক্সটাইল শিল্পের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারএমন তথ্য উল্লেখ করে গার্ড মুলার বলেন, করোনা প্যানডেমিক বিশ্বকে জরুরি অবস্থায় নিয়ে গেছে রেস্টুরেন্ট দোকান বন্ধ হয়ে মুক্ত চলাফেরা সীমিত করা হয়েছে, যা বিশেষ করে জার্মানির টেক্সটাইল শিল্পকে আঘাত করেছে ভোক্তা চাহিদা ৭০ শতাংশ পতনের অভিজ্ঞতা হয়েছে কিছু কোম্পানির জার্মানির টেক্সটাইল ব্যবসার এক-তৃতীয়াংশ বন্ধের হুমকিতে আছে এমন শঙ্কায় আছে টেক্সটাইল শিল্পের প্রতিনিধি সংগঠন করোনা প্যানডেমিক বিশ্বকে কতটা দীর্ঘ সময় আঁকড়ে ধরে রাখবে তা কেউ জানে না; যা পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলছে

বাংলাদেশের টেক্সটাইল প্রতিষ্ঠান এবং তাদের শ্রমিকদের ঝুঁকিপূর্ণ সামাজিক দুর্দশার বিষয়ে উদ্বেগের কথা সংশ্লিষ্টদের জানাবেন বিজিএমইএ সভাপতিকে এমন নিশ্চয়তা দিয়ে মুলার বলেন, জরুরি অনুরোধ জানিয়ে যে আবেদন আপনি করেছেন, আমি এখন তা জার্মানির টেক্সটাইল শিল্প প্রতিনিধিদের জানাব আমার আশা জার্মানি বাংলাদেশের লাখো শ্রমিকের টেক্সটাইল শিল্প টিকিয়ে রাখার সুরক্ষা ব্যবস্থা আমরা খুঁজে পাব

-মেইল বার্তায় তিনি আরো বলেন, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের প্রভাব থেকে বাংলাদেশের মতো উৎপাদনশীল দেশগুলোর উৎপাদন রক্ষা করতে আমার মন্ত্রণালয় বেশকিছু সহায়তা পদক্ষেপ মূল্যায়ন করছে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবসায় রেখে কাজ আয় সুরক্ষাই হলো পদক্ষেপগুলোর লক্ষ্য

বাংলাদেশের শ্রমিকদের তিনি ভুলবেন নাএমন বার্তা উল্লেখ করে গার্ড মুলার বলেন, বর্তমান জরুরি পরিস্থিতিতে চিকিৎসা সুরক্ষা পোশাকের মতো কিছু পণ্যের চাহিদা ক্রয়াদেশ পরিবর্তন হচ্ছে ধরনের পণ্যে ক্রয়াদেশ অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য বাংলাদেশ পাবে বলে আমি আশা করছি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন