বুধবার| এপ্রিল ০৮, ২০২০| ২৪চৈত্র১৪২৬

সম্পাদকীয়

মহান স্বাধীনতা দিবস

চলমান মহামারী মোকাবেলাই হোক সম্মিলিত লক্ষ্য

আজ মহান স্বাধীনতা দিবস অন্যায়, নিপীড়ন পরাধীনতার শৃঙ্খল চূর্ণ করে মুক্ত মর্যাদাপূর্ণ জীবনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার আহ্বানে সাড়া দেয় কোটি বাঙালি পশ্চিম পাকিস্তানের দীর্ঘদিনের বৈষম্য আর অবহেলায় কোণঠাসা মানুষ নতুন জীবনের তরে সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ে উন্নত জীবন আর বৈষম্যহীন সমাজ গড়ার লড়াইয়ে বাঙালি সফলতা পায় নয় মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালির অর্জন লাখো শহীদের আত্মত্যাগের মাধ্যমে

শত প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বেড়েছে, অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে কৃষি, শিল্প সেবা খাতে অর্থনৈতিক সামাজিক ঝুঁঁকি সূচকে উন্নতি অর্জিত হয়েছে দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে, গড় আয়ু বেড়েছে, প্রবাসী আয় পোশাক শিল্পের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের হার বৃদ্ধি পেয়েছে, প্রযুক্তিগত উন্নয়ন ঘটেছে ২০৩০ সাল নাগাদ এসডিজির শর্ত পূরণে অর্থনৈতিক, সামাজিক পরিবেশগত লক্ষ্য অর্জনের কর্মসূচি রয়েছে আমাদের এক্ষেত্রে বছর বছর বেড়ে চলা প্রকল্প বাস্তবায়ন ব্যয়, নতুন বিনিয়োগ না হওয়া, কর্মসংস্থানহীনতা বর্তমানে নতুন প্রতিবন্ধক হয়ে দেখা দিয়েছে প্রতি বছর সংখ্যা বাড়ছে চাকরি প্রত্যাশিত মানুষের কাজ আছে, তবে আমাদের তরুণরা বাজারে চাহিদা পূরণ করতে পারছে না শিক্ষা ব্যবস্থার দুর্বলতাগুলো দৃশ্যমান জরুরি শিক্ষা ব্যবস্থার তুমুল পরিবর্তন কারিগরি শিক্ষায় মনোযোগ প্রদান ব্যাংকঋণ নিয়ে অর্থ আত্মসা, বিভিন্ন প্রকল্পের নামে টাকা লুটপাটের লাগাম টানা যাচ্ছে না বিষয়গুলো অগ্রগতির পক্ষে বড় ধরনের প্রতিবন্ধক অবস্থায় দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করে তা নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে দুর্নীতি দমন, নির্যাতন রোধ, বৈষম্য নিরসন, আয়ের সুষম বণ্টন, শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিত, স্বাস্থ্যসেবা সামাজিক নিরাপত্তার বিষয়গুলো সুনিশ্চিতের মাধ্যমে অর্জিত হয় প্রকৃত স্বাধীনতা লক্ষ্যে বিনিয়োগ, শিল্পায়ন, পাদন, অবকাঠামো উন্নয়ন, রফতানি, কর্মসংস্থান, প্রশিক্ষণ, সামাজিক কর্মসূচি বাড়াতে হবে স্বাধীনতার এত বছর পরও বস্ত্র শিল্প, চিনি শিল্প, কৃষি প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের অগ্রগতি নামমাত্র এখনো পোশাক খাতের ওপর আমরা এককভাবে নির্ভরশীল উল্লিখিত খাতগুলোয় নজর দেয়ার পাশাপাশি সর্বাগ্রে অবকাঠামোগত উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দেয়া চাই

বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে শামিল হতে যাচ্ছে অবস্থায় আন্তর্জাতিক বাজারে নতুনভাবে প্রতিযোগিতার মুখে পড়তে হবে আমাদের পোশাক শিল্পের অন্যতম গন্তব্য ইউরোপের বাজারে আমরা বর্তমানের অনেক সুযোগ সুবিধাগুলো পাব না তাছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে বৈশ্বিক বাজার ব্যবস্থা, আমদানি-রফতানি থেকে শুরু করে সামগ্রিক প্রেক্ষাপটের যে বাঁকবদল ঘটবে তার সঙ্গে সক্ষমতার লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে আমাদের দূরদৃষ্টি ধারণের পাশাপাশি ভবিষ্য চিত্র অনুমানপূর্বক প্রস্তুতি গ্রহণ করা চাই বিভিন্ন সময় প্রাকৃতিক বিপর্যয় সত্ত্বেও উপকূলের বিপুলসংখ্যক মানুষ বিরূপ পরিবেশে নিজেদের টিকে থাকার সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে সামাজিক ঐক্য স্বাধীন বাংলাদেশের আবির্ভাবের কালে শক্তি হিসেবে কাজ করেছিল, তা আজও টিকে আছে যদিও নানা রাজনৈতিক অস্থিরতা, দলগুলোর মধ্যকার বিরোধপূর্ণ রাজনীতি, সংঘাত সংঘর্ষ, রূঢ় মতদ্বৈধতা সামাজিক সম্মিলনের সুখকর পরিবেশ বারবার নষ্ট করে আসছে এরই প্রভাব পড়েছে বিভিন্ন রকম প্রতিষ্ঠানে সরাসরি জনসেবামূলক প্রতিষ্ঠানগুলো যেমন পেশাদার হয়ে উঠতে পারছে না, তেমনি বিভিন্ন আর্থিক, সাংস্কৃতিক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানও প্রশাসনিক অবকাঠামোগতভাবে দুর্বল অবস্থায় রয়ে গেছে মুষ্টিমেয় ব্যক্তির লাভালাভের হিসাব বেশির ভাগ মানুষের জীবনযাপনে জোর প্রভাব রাখছে কখনো কখনো জবাবদিহিতার সবসময় পরিবেশও কার্যকর নেই বলা চলে জায়গাগুলোতে দৃষ্টি দেয়া জরুরি

স্বাধীনতাকে অর্থবহ করে তুলতে সব বিভেদ ভুলে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে সেই ঐক্যের ভিত্তিতে বিদ্যমান সমস্যাগুলো আমরা দ্রুত কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হব চলমান বৈশ্বিক মহামারী মোকাবেলায় সরকার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করছে নাগরিক হিসেবে আমরাও যেন সংকট মোকাবেলার পরীক্ষায় ভালোভাবে উত্তীর্ণ হতে পারি, দেশের স্বার্থে, মানুষের স্বার্থে নিজেদের নাগরিক দায়িত্ব পালনে অঙ্গীকারবদ্ধ থাকি, মহান স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে হোক আমাদের নতুন অঙ্গীকার সংকটে দারিদ্র্য সুবিধাবঞ্চিত শ্রেণী যেন উহ্য থেকে না যায়, তা নিশ্চিত করতে হবে দেশের বিপুল জনগোষ্ঠী এখনো দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করছে আয় সম্পদের বৈষম্য আগের চেয়ে বেড়েছে দুর্নীতি-লুটপাট বেড়ে ওঠায় নতুন সুবিধাবাদী শ্রেণী তৈরি হয়েছে আমাদের স্বাধীনতার শতভাগ অর্জিত হবে চ্যালেঞ্জগুলো উত্তরণের মাধ্যমে একই সঙ্গে যেকোনো দুর্যোগ সংকট মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতিগুলো নিয়েও ভাবতে হবে আমরা যাতে ভবিষ্যতে যেকোনো সংকট মোকাবেলার আগাম প্রস্তুতি সক্ষমতা অর্জন করতে পারি, তার লক্ষ্যে এখন থেকেই পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে সরকারকে উপলব্ধি করতে হবে, স্বাধীনতার সুফল যেন প্রতিটি মানুষ পায় সবার জন্য খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার মাধ্যমে স্বাধীনতা অনেক বেশি অর্থবহ হবে

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন