শুক্রবার| এপ্রিল ০৩, ২০২০| ১৮চৈত্র১৪২৬

আন্তর্জাতিক খবর

লকডাউনে আতঙ্কিত ভারতীয়দের পণ্য মজুদের হিড়িক

বণিক বার্তা অনলাইন

আজ বুধবার মধ্যরাত থেকে পুরোপুরি লকডাউন হতে যাচ্ছে ভারত। নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে আগামী ২১ দিন ১৩০ কোটি মানুষকে ঘর থেকে বের হওয়ার কথা ভুলে যেতে বলেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি আতঙ্কিত না হওয়ার কথা বললেও জনগণ হুমড়ে পড়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য মজুদে।

গোটাদেশ লকডাউন হলেও খোলা থাকছে রেশন ও মুদি দোকান; ফল,শাকসবজি, মাছ, মাংস ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় বাজার। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে করতে হবে কেনাকাটা। আতঙ্কিত জনগণ মানছেন না এ নির্দেশনা। লকডাউন শুরুর আগে তাই বাজারগুলোতে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়।

যা কিছু বন্ধ

* সকল প্রকার পরিবহন, উড়োজাহাজ, ট্রেন ও সড়কপথ

*করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজন ব্যতীত সকল সরকারি প্রতিষ্ঠান

 * বাণিজ্যিক ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান

* শিল্প প্রতিষ্ঠান

* স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান

* শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

* সমস্ত উপাসনার স্থান, ধর্মীয় জমায়েত

* সমস্ত সামাজিক, রাজনৈতিক, খেলাধুলা, বিনোদন, একাডেমিক, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় কার্যক্রম


যা কিছু খোলা

* ব্যাংক, বীমা অফিস এবং এটিএম

* স্যানিটেশন, পানি, বিদ্যুতের মতো প্রয়োজনীয় পরিষেবা

* সরকারি ও বেসরকারি উভয় ক্ষেত্রে হাসপাতাল, ল্যাব, ক্লিনিক, নার্সিং হোমস, অ্যাম্বুলেন্সের মতো উৎপাদন ও বিতরণ ইউনিটসহ সমস্ত মেডিকেল প্রতিষ্ঠান

* চিকিৎসা কর্মী, নার্স, প্যারামেডিক্যাল স্টাফ, হাসপাতালের অন্যান্য সহায়তার জন্য পরিবহন

* খাবার, মুদি, ফলমূল ও শাকসবজি, দুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত পণ্য, মাংস এবং মাছ ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সম্পর্কিত রেশনসহ (পিডিএস এর আওতাধীন) সকল দোকান

* খাদ্য, ওষুধ, চিকিৎসা সরঞ্জামের হোম ডেলিভারি

* মুদ্রণ এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়া, টেলিযোগাযোগ, ইন্টারনেট পরিষেবা, সম্প্রচার এবং ক্যাবল পরিষেবা এবং আইটি-সক্ষম পরিষেবা (প্রয়োজনীয় পরিষেবার জন্য)

* পেট্রোল পাম্প, এলপিজি, পেট্রোলিয়াম ও গ্যাস খুচরা, স্টোরেজ আউটলেট

* বিদ্যুৎ উৎপাদন, সঞ্চালন ও বিতরণ ইউনিট এবং পরিষেবা

* সিবিআই কর্তৃক বিজ্ঞপ্তিভুক্ত শেয়ার বাজার

* কোল্ড স্টোরেজ এবং গুদামজাত করা সেবা

* ব্যক্তিগত সুরক্ষা পরিষেবা সমূহ

* অপরিহার্য পণ্য উৎপাদন ইউনিট।

* রাজ্য সরকারের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতিপ্রাপ্ত উৎপাদন ইউনিট, 

* প্রয়োজনীয় পণ্য, অগ্নিনির্বাপক, আইন শৃঙ্খলা ও জরুরী সেবা পরিবহন

* আটকে পড়া পর্যটকদের এবং  মেডিকেল, জরুরী কর্মী, বিমান, ক্রু ও কোয়ারেন্টিনের জন্য ব্যবহৃত হোটেল, হোমস্টে, লজ এবং মোটেলগুলি 

* শেষকৃত্যানুষ্ঠানে ২০ জনের কম মানুষ যোগ দিতে পারবেন।

* প্রতিরক্ষা, কেন্দ্রীয় সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী, কোষাগার

* পেট্রোলিয়াম, সিএনজি, এলপিজি, পিএনজির মতো জনসমাগম

* দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ডাকঘর, পুলিশ, হোম গার্ড, অগ্নিকাণ্ড ও জরুরি পরিষেবা, কারাগার।

 আদেশ না মানলে  যে শাস্তি

* ১৫ ফেব্রুয়ারির পরে ভারতে আগত সমস্ত ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টিনে না থাকলে ছয় মাস পর্যন্ত জেল 

* দায়িত্বে বাধা দেয়ার শাস্তি: এক থেকে দুই বছর জেল বা জরিমানা

* মিথ্যা দাবির জন্য শাস্তি: দুই বছরের কারাদণ্ড এবং জরিমানা

* গুজবের শাস্তি: এক বছরের জেল বা জরিমানা 

সূত্র: বিবিসি ও এনডিটিভি


এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন