বৃহস্পতিবার| এপ্রিল ০২, ২০২০| ১৮চৈত্র১৪২৬

শেষ পাতা

৩ আসনে উপনির্বাচন আজ

ইভিএমে সংক্রমণ ছড়ানোর শঙ্কা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের শঙ্কা নিয়ে দেশের তিনটি সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আজ। আসন তিনটি হচ্ছে ঢাকা-১০, বাগেরহাট- গাইবান্ধা-৩। এর মধ্যে ঢাকা-১০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হবে। সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে অবশ্য বলা হচ্ছে ইভিএমের মাধ্যমে ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস।

আজ সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ চলবে। গতকাল সকাল থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত রাজধানীর টিচার্স ট্রেনিং কলেজে ১১৭টি কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তার কাছে ইভিএম মেশিনসহ ভোটের সরঞ্জামাদি বিতরণ করা হয়। সময় করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রতিটি কেন্দ্রে একটি করে নির্দেশনামূলক ফেস্টুন, প্রতিটি কক্ষের জন্য একটি করে হ্যান্ড স্যানিটাইজার টিস্যুর প্যাকেট দেয়া হয়। তবে ভাইরাস রোধে দেয়া হয়নি কোনো মাস্কসহ অন্যান্য সুরক্ষা সামগ্রী।

বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, ভোটগ্রহণ নির্বাচন কমিশনের বিষয়। ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কিছু বলার নেই। তবে ইভিএমের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়াতে পারে কিনা, এমন এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, যদি আক্রান্ত কেউ ভোটদানে অংশগ্রহণ করে, তার থেকে ইভিএমের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি আছে।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ভোটকেন্দ্রগুলোয় ভোটার উপস্থিতির পাশাপাশি নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন নিরাপত্তা কর্মীসহ ভোটগ্রহণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তারা বলেছেন, মক ভোটিংয়ে কোনো লোকই পাওয়া যায়নি। অবস্থায় কয়জন ভোটার পাব তা নিয়ে

আমাদের সন্দেহ আছে। দেশের পরিস্থিতিতে অন্য দুই আসনেও (বাগেরহাট-, গাইবান্ধা-) ভোটাররা কেন্দ্রে যাবে কিনা, তা নিয়েও আছে নানা জল্পনা-কল্পনা। দুটি আসনে ভোট দিতে আসা লোকের সমাগমও ঝুঁকির কারণ বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা।

তবে করোনা প্রতিরোধে কেন্দ্রগুলোতে সার্বিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এমন দাবি করে ভোটারদের কেন্দ্রে আসার আহ্বান জানান ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর। তিনি বলেন, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে এটা ঠিক। কিন্তু যেহেতু এখনো এটা মহামারী আকারে ছড়ায়নি এবং ভোটের দিন সামনে, সেজন্য নির্বাচনে (২১ মার্চ) ভোটগ্রহণ করাটাই অধিকতর যুক্তিসংগত বলে মনে করেছে ইসি। সময় তিনি ভোটকেন্দ্রে রাখা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে বলেন, হাত ধুয়ে ভোট দেবেন, আবার ভোট দেয়ার পর হাত ধুয়ে বের হয়ে যাবেন। তবে যারা সম্প্রতি দেশে এসেছেন তাদের ভোটকেন্দ্রে না আসার অনুরোধ করেন তিনি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার কমিশনের এক বৈঠকে তিনজন নির্বাচন কমিশনার ভোটগ্রহণ স্থগিতের পক্ষে মত দেন। কিন্তু অপর দুজন কমিশনার ভোটগ্রহণের পক্ষে অনড় থাকায় কমিশন ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়। ঢাকা-১০ আসনটিতে এবার মোট ভোটারের সংখ্যা লাখ ২১ হাজার ২৭৫ জন। আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ছয়জন প্রার্থী।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন