বৃহস্পতিবার| এপ্রিল ০২, ২০২০| ১৮চৈত্র১৪২৬

খবর

ওমরা ভিসা স্থগিতের সিদ্ধান্ত সৌদির

শাহজালালে দুর্ভোগে ওমরাযাত্রীরা

বণিক বার্তা অনলাইন

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কায় ওমরা পালন ও মসজিদে নববীতে জিয়ারত সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে সৌদি আরব। আজ বৃহস্পতিবার সকালে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এমন ঘোষণার পর ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন পাঁচশতাধিক ওমরা যাত্রী। এয়ার লাইন্সগুলো জানিয়েছে, সৌদি আরবের পরবর্তী ঘোষণা আগ পর্যন্ত যাত্রীদের নিতে পারবে না তারা। 

যেসব ওমরা হজযাত্রী আগে ভিসা ও টিকিট নিয়েছেন তাদেরও সকাল থেকে কোন ফ্লাইট পরিবহন করেনি। 

এ বিষয়ে হাব নেতারা জানিয়েছেন, এরিমধ্যে ১০ হাজার ওমরা ভিসা করা আছে, ৯ কোটি টাকার টিকিট কাটা আছে, সব কিছু নিয়ে এখন অনিশ্চয়তায় পড়েছেন তারা।

করোনা ভাইরাসের কারণে ওমরা ভিসা বন্ধের ঘোষণায় বাংলাদেশ ৫০ কোটি টাকার আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলেও জানান তারা। তবে করোনা ভাইরাসের প্রভাব নিয়ে হজের বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত দেয়নি সৌদি সরকার।

আজ বৃহস্পতিবার সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, সৌদি আরবে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় যারা ওমরা করতে চাচ্ছেন বা মদিনায় মসজিদে নববীতে যেতে চাচ্ছেন তাদের প্রবেশাধিকার সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়াও আক্রান্ত দেশগুলোতে সম্প্রতি ভ্রমণ করা বিদেশী নাগরিকদের সৌদি আরবের ভ্রমণ ভিসা থাকলেও প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলেও জানানো হয়েছে।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ইতোমধ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে সৌদি সরকার। সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ মনিটরিংয়ের জন্য আলাদা সেল গঠন করেছে। তাদের পরামর্শেই ওমরাহযাত্রীদের প্রবেশ অনুমতি না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হলো।

উপসাগরীয় সহযোগিতা কাউন্সিলভুক্ত (জিসিসি) দেশগুলোতে বসবাসরত সৌদি নাগরিকরা জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করেই এসব দেশে যাওয়া-আসা করার সুযোগ পান। তবে আপাতত সেই সুযোগও স্থগিত করা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথমবারের মতো ধরা পড়ে করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত এটি বিশ্বের অন্তত ৪৯টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ২ হাজার ৮০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ২৭ জন।

এদিকে চীনের মূলভূখন্ডে মৃতরে সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৪৪ জন। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৭৮ হাজার ৪৯৭ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩০ হাজারেরও বেশি। 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন