শুক্রবার| এপ্রিল ০৩, ২০২০| ১৯চৈত্র১৪২৬

খবর

মেশিনে পাঁচ টাকার কয়েন দিলেই ন্যাপকিন পাবে চবির ছাত্রীরা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, চবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ছাত্রীদের জন্য স্বয়ংক্রিয় ভেন্ডিং মেশিনে পাঁচ টাকায় স্যানিটারি ন্যাপকিন প্রকল্প চালু হয়েছে। বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান এলজির অর্থায়নে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয়টি অনুষদে, একটি ইনস্টিটিউটে ও ছাত্রীদের একটি আবাসিক হলে ভেন্ডিং মেশিনগুলো স্থাপন করেছেন মার্কেটিং বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী তৌসিফ আহমেদ।

গতকাল মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ মিলনায়তনে প্রকল্পটির উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক এসএম সালামত উল্ল্যাহ ভূঁইয়া। তিনি বলেন, অসাধারণ এ উদ্যোগের মধ্য দিয়ে ছাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে। উন্নত দেশগুলোর মতো আমাদের দেশে নারীদের স্বাস্থ্যের বিষয়টি মাথায় রেখে এ ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয় না। তাই এ ধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাভেদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সাহিদুর রহমান, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি শাহনেওয়াজ মাহমুদ সোহেল, মার্কেটিং বিভাগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. সজীব কুমার ঘোষ এবং বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান এলজির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডি কে সান।

ফেসবুকে ভারতের স্কুলগুলাতে স্যানিটারি ভেন্ডিং মেশিন স্থাপনের বিষয়টি জানার পর এ নিয়ে চিন্তা শুরু হয় বলে জানিয়েছেন প্রকল্পটির উদ্যাক্তা তৌসিফ আহমেদ। তিনি বলেন, ‘আইডিয়াটি মাথায় আসলেও আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণে বাস্তবায়ন নিয়ে সংশয় ছিল। ২০১৯ সালর অক্টোবরে অনুষ্ঠিত বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান এলজি’র অ্যাম্বাসেডর প্রোগ্রামে অংশ নিয়েছিলাম। সেখানে আইডিয়া জমা দিলে চারজনের মধ্যে আমার আইডিয়া চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হয়। পুরস্কার হিসেবে স্যানিটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং মেশিন স্থাপনের জন্য সাড়ে চার লাখ টাকা অনুদান দেয় এলজি। ভেন্ডিং মেশিন থেকে যে কোন সময় ছাত্রীরা ৫ টাকার কয়েন দিয়ে স্যানিটারি ন্যাপকিন কিনতে পারবেন। উদ্বোধনের প্রথম দুই সপ্তাহ বিনামূল্য ভেন্ডিং মেশিন থেকে প্যাড সংগ্রহ করা যাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ১০ হাজার ছাত্রী সেবাটি পাবেন।'

তিনি আরো বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়র ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ, কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ, সমাজবিজ্ঞান অনুষদ, বিজ্ঞান অনুষদ, জীববিজ্ঞান অনুষদ, আইন অনুষদ, বন ও পরিবশবিদ্যা ইনস্টিটিউট এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা হলে একটি করে মোট আটটি ভেন্ডিং মেশিন বসানো হয়েছে। প্রথম দুই সপ্তাহ বিনামূল্যে ভেন্ডিং মেশিন থেকে প্যাড সংগ্রহ করতে পারবেন ছাত্রীরা। প্রকল্পটি সবসময় তদারকি নিয়ে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথেও কথা বলেছিলাম। শিক্ষকদের তদারকি করা আসলে কঠিন বিষয়। তাই আমরা অনুষদ ভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবীদের সময় মনিটরিং দল গঠন করা হবে। আর ন্যাপকিন উৎপাদনকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানর সাথেও আমরা যোগাযোগ করছি। ভবিষ্যতে আরো বড় পরিসরে কাজ করার ইচ্ছা রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন