বুধবার | অক্টোবর ২১, ২০২০ | ৫ কার্তিক ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

গভীর সংকটে মাসায়োশির বৃহৎ আবাসন বিনিয়োগ

বণিক বার্তা ডেস্ক

উইওয়ার্কে বিশাল ধস নামার আগে গত মার্চে নিজের অন্য একটি প্রিয় পোর্টফোলিও কোম্পানির সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করছিলেন সফটব্যাংকের প্রধান মাসায়োশি সন টোকিওতে সফটব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের বিস্তৃত কনফারেন্স হলে তিনি যে কোম্পানিটি নিয়ে কথা বলছিলেন, তা ছিল ওয়ো নামে ভারতের একটি স্টার্টআপ ওয়ো সফটব্যাংকের সহযোগীদের নিয়ে একটি কৌশলপত্র দাঁড় করানোর জন্য কাজ করছিলেন তখন ওই কক্ষে থাকা কয়েকজনের বরাতে জানা গেছে, জাপানের স্থবির হোটেল ব্যবসা এবং স্বল্পমেয়াদে অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়ার ক্ষেত্রে বড় আকারের ধাক্কা দিতে পারে ওয়ো বিশালাকার হোয়াইট বোর্ডে লেখা একটি লক্ষ্যমাত্রা মাসায়োশির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল, তা হলো এক বছরের মধ্যে ১০ লাখ কক্ষ যুক্ত করার লক্ষ্যমাত্রা প্রায় এক বছর শেষে বর্তমানে ওয়োর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে মাত্র সাড়ে হাজার কক্ষ, যা ওই লক্ষ্যমাত্রার শতাংশেরও কম উইওয়ার্ক উবার নিয়ে মাসায়োশির সুনাম ক্ষুণ্ন হলেও তখন বাজারে অল্প সময়ে বড় আকারের প্রভাব ফেলতে চেয়েছিলেন জাপানি বিনিয়োগকারী

লক্ষ্যের সঙ্গে বিশাল ফারাকের মাধ্যমে সফটব্যাংক যে আরেকটি শ্বেতহস্তী উপহার দিতে যাচ্ছে, সে আশঙ্কা ভর করেছে হয়তো এর মাধ্যমে সফটব্যাংকের বিনিয়োগ কৌশলের বড় ত্রুটিকেও সামনে নিয়ে আসছে নতুন স্টার্টআপে লাখ লাখ ডলার বিনিয়োগ এবং এর মাধ্যমে কোম্পানিতে খাপ ছাড়া প্রবৃদ্ধি নিয়ে আসছে এতে অনেক সময় সম্ভাবনাময় ব্যবসা মার খাচ্ছে জাপানে দ্রুত সম্প্রসারিত হতে গিয়ে ওয়ো সম্ভাব্য অংশীদারদের ক্ষেপিয়ে তুলেছে, কর্মীদের থেকে দূরে সরে গেছে এবং স্থানীয় গ্রাহকদের কাছে সুনাম হারিয়েছে অন্তত দুই ডজন কর্মী, গ্রাহক সম্ভাব্য অংশীদারের সাক্ষাত্কারে এমনটা জেনেছে ব্লুমবার্গ স্থানীয় এক গ্রাহক এতটাই ক্ষেপেছেন যে, তিনি টুইটারে ওয়ো লাইফ ভিক্টিমস অ্যাসোসিয়েশন নামে একটি অ্যাকাউন্ট চালু করেছেন একই ধরনের হতাশা ব্যক্ত করছেন ভারত অন্যান্য বাজারের গ্রাহক হোটেল মালিকরা

সমস্যাটা এতই গুরুতর আকার ধারণ করেছে যে, গত সপ্তাহে টোকিওতে কোম্পানি বৈঠকে প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন মাসায়োশি হোটেল মালিকদের সঙ্গে যে কিছুটা বিরোধ হয়েছে, সে বিষয় স্বীকার করেছেন তিনি তবে ব্যবসায় এমনটা হতেই পারে এবং অন্য সবকিছু ভালো চলছে রকম ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, ওয়ো একটি চমত্কার কোম্পানি

রিতেশ আগারওয়াল ২৬ বছর বয়সী এক তরুণ ওয়ো প্রতিষ্ঠা করে উইওয়ার্কের সঙ্গে মিলের কারণে তা সফটব্যাংকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল দুটি কোম্পানিই প্রযুক্তির সহায়তায় প্রথাগত আবাসন ব্যবসাকে পাল্টানোর চেষ্টা করছিল উভয় কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতাও দুই ক্যারিশমাটিক তরুণ উইওয়ার্কের মতো ওয়ো সংকটাপন্ন হওয়ায় প্রযুক্তিতে মাসায়োশির বড় আকারের বিনিয়োগ পরিকল্পনা প্রশ্নের মুখে পড়েছে সফটব্যাংকের এখন ধীরেসুস্থে এগোনো উচিত বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা নিউইয়র্কভিত্তিক ম্যানহাটন ভেঞ্চার পার্টনার্সের সন্তোষ রাও বলেন, ওয়ো অনেকটা উইওয়ার্কের পথেই হাঁটছে তাদেরকে এখন একটু রাশ টেনে ধরা দরকার

সিকুইয়া ইন্ডিয়া এয়ারবিএনবির মতো কোম্পানিগুলোর বৃহৎ শেয়ারহোল্ডারদের একটি হচ্ছে সফটব্যাংক আরেকটি বড় ভুল হজম করার মতো জায়গায় নেই মাসায়োশি সফটব্যাংকের ভিশন ফান্ডে তার উত্তরসূরির জন্য ১০ হাজার কোটি ডলার মূলধন রেখে যেতে চান তিনি তবে উইওয়ার্ক উবারের ব্যর্থতায় সম্ভাব্য বিনিয়োগকারীরা আতঙ্ক বোধ করছেন

ভারতের বাজারে ওয়ো যতটা সফল হয়েছে সাড়া ফেলেছে, জাপানে ততটাই ব্যর্থ হয়েছে স্টার্টআপটি এছাড়া ভারতের বাজারে যে ব্যবসায় মডেল খুব কাজ করে তা যুক্তরাষ্ট্র ইউরোপের বাজারে কাজ না- করতে পারে             সূত্র: ব্লুমবার্গ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন