বৃহস্পতিবার| ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০| ৭ফাল্গুন১৪২৬

দেশের খবর

রাঙ্গামাটিতে নৌকাডুবি: কাপ্তাই হ্রদে ৫, কর্ণফুলীতে ১ মরদেহ উদ্ধার

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, রাঙ্গামাটি

রাঙ্গামাটির কাপ্তাই হ্রদে ইঞ্জিনচালিত নৌকাডুবির ঘটনায় পাঁচ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে রাঙ্গামাটি ডিসি বাংলো এলাকা থেকে শুভলং যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, রিনা আক্তার (৩২), শিলা আক্তার (২৭), আসমা আক্তার (২২) ও আফরোজা আক্তার (১৪)। আরেকজনের পরিচয় জানা যায়নি।

রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. শওকত আকবর জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত নৌকা ডুবির ঘটনায় হাসপাতালে পাঁচ জনের মরদেহ আনা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ডুবে যাওয়া নৌকার যাত্রীদের ভাষ্য, আজ শুক্রবার পহেলা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে চট্টগ্রামের প্যাসিফিক জিন্স গার্মেন্টের কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা মিলে ৫০ জনের একটি দল রাঙ্গামাটিতে বেড়াতে আসে। সকালে তারা দুইটি ইঞ্জিনচালিত নৌকা ভাড়া করে শুভলংয়ের উদ্দেশে রওনা দেয়। এর মধ্যে একটিতে ৩০ জন ও আরেকটিতে ২০ জন যাত্রী ছিলেন। পথিমধ্যে একটি নৌকা থেকে আরেকটি নৌকায় কামরাঙ্গা ছুঁড়ে দিতে শুরু করলে অন্য নৌকার যাত্রীরা ধরতে নৌকার এক কিনারে চলে আসেন। তখন নৌকাটি ভারসাম্য হারিয়ে উল্টে যায়। বয়স্কদের মধ্যে অনেকে সাঁতরে পাড়ে এলেও শিশুসহ বেশ কয়েকজন পানিতে ডুবে যায়।

রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ জানিয়েছেন, রাঙ্গামাটিতে ডুবুরি না থাকলেও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা হ্রদের পানি থেকে পাঁচটি মরদেহ উদ্ধার করেছে। এসময় তিনজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এরমধ্যে এক শিশুকে মরদেহ উদ্ধারের পরে জীবিত উদ্ধার করা হয়। শিশুটি নৌকার জেগে থাকা এককোণ ধরে ভেসে ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অপরদিকে জেলার কাপ্তাই উপজেলার কয়লার ডিপো সংলগ্ন কর্ণফুলী নদীতে আন্তর্জান্তিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘের (ইসকন) একটি বনভোজনের নৌকা ডুবে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে নৌকা থেকে অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হলেও এখনো তিনজন নিখোঁজ ছিলেন। পরে এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বাকি দুই জন এখনো নিখোঁজ। শিশুটির নাম দেবলিনা দে (১০)। সে চট্টগ্রাম কোতয়ালী থানার হাজারিগলি এলাকার রতন দের মেয়ে। নিখোঁজ অন্যরা হলেন, চট্টগ্রামের জোরারগঞ্জ থানার হরিপুর মজুমদার বাড়ির রাজিব মজুমদারের স্ত্রী টুম্পা মজুমদার ৩০ ও ছেলে বিজয় মজুমদার (৫)। সন্ধ্যা পর্যন্ত ডুবুরি দল অভিযান চালিয়েও তাদের সন্ধান পায়নি।

এটিকে নৌ-পথেদুর্ঘটনা এড়াতে রাঙ্গামাটির কাপ্তাই হ্রদে চলাচলকারী সব ধরনের ট্যুরিস্ট বোটের ছাদ ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। শুক্রবার সকালে কাপ্তাই হ্রদের সংঘটিত দুর্ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিকালে জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে আয়োজিত এক জরুরি সভায় এ নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত নেন জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ। এসময় তিনি হ্রদের চলাচলকারী অন্যান্য ইঞ্জিনচালিত বড় নৌকা ও লঞ্চের ফিটনেস যাচাই করতে বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন