বৃহস্পতিবার| ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০| ৭ফাল্গুন১৪২৬

ফিচার

গ্রন্থমেলায় অনন্য ‘বিদ্যানন্দ’

বণিক বার্তা অনলাইন

একুশে গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি চত্বরে অবস্থিত বইয়ের স্টলগুলোর মধ্যে আলাদা করে নজরে পড়বে একটি স্টল। ৭৭ নম্বর এ স্টলটি বিদ্যানন্দ নামে একটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের।  

সম্প্রতি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন শেষ হলে শহরজুড়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা পোস্টার ও ব্যানার সংগ্রহ করে একই নামের একটি সংগঠন। এসব কাগজ ও পলিথিন দিয়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য খাতা ও ব্যাগ বানিয়ে প্রশংসা কুড়ায় তারা। বিদ্যানন্দ তাদেরই প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান।

গ্রন্থমেলার স্টলটি তারা সাজিয়েছে পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল ও ছিপি, ট্যাবলেট-ক্যাপসুলের খোসা, নির্বাচনী পোস্টার আর অব্যবহৃত ইলেকট্রনিক্সের যন্ত্রাংশ দিয়ে। 

স্টলের দেয়ালে আঁকা হয়েছে প্লাস্টিক পণ্যে পরিবেশ ও সমুদ্র দূষণের প্রতিচ্ছবি।  এগুলো তৈরি করা হয়েছে ফেলে দেয়া প্লাস্টিকের বোতল ও সার্কিট বোর্ডের অংশ দিয়ে। মানুষ ও জলজ প্রাণিদের ওপর প্লাস্টিক বর্জ্যের ক্ষতিকর প্রভাব ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন তারা।

স্টলের সামনের অংশ তৈরি করা হয়েছে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পরিত্যক্ত পোস্টার ও ব্যানার দিয়ে।  

‘পড়বো, খেলবো, শিখবো’ স্লোগান লেখা ব্যানার আর বিচিত্র ও রঙ্গিন সাজের স্টলটি সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। 

এছাড়া এ স্টলে রয়েছে পুরনো আর অব্যবহৃত জিনিস রিসাইক্লিংয়ের সুযোগ। ঘরে পড়ে থাকা নষ্ট বা সচল সেলফোন, ল্যাপটপ আর ন্যূনতম ৬ মাস মেয়াদ থাকা ওষুধের বিনিময়ে পাওয়া যাচ্ছে বই। 

অব্যবহৃত এসব পণ্যের দাম নির্ধারণ সম্পর্কে সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবীরা জানান, ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের ক্ষেত্রে সচল হলে তিন হাজার টাকা এবং চালু না হলে দেড় হাজার টাকা, অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলের ক্ষেত্রে সচল হলে এক হাজার টাকা, না হলে ২০০ টাকা এবং ওষুধের ক্ষেত্রে ক্রয়মূল্যের উপর ৫০ শতাংশ ছাড় দিয়ে দাম ধরা হয়। তবে ওষুধের ক্ষেত্রে অবশ্যই কমপক্ষে ছয় মাস মেয়াদ থাকতে হবে।

বিদ্যানন্দের কর্মীরা জানান, ওষুধগুলো পৌঁছে দেয়া হবে চরাঞ্চলের মানুষের কাছে। সচল ল্যাপটপ দিয়ে সাজানো হবে বিদ্যানন্দের এতিমখানার কম্পিউটার ল্যাব। প্রিয়জনদের থেকে বিচ্ছিন্ন থাকা পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হবে সেলফোনগুলো।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন